Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মেসির চেয়ে জ্যোতিষীকে বেশি ভয় জার্মানবাসী বাঙালিদের

অশোক সেনগুপ্ত
১৩ জুলাই ২০১৪ ০৩:৩৫

দু’সপ্তাহের ভিনসেন্টকে কোলে নিয়েই খেলা দেখবেন স্যাক্সনি আনহাল্টের ভাস্বতী চট্টোপাধ্যায়।

জার্মানির প্রায় সাড়ে চার দশকের বাসিন্দা, পদস্থ ইঞ্জিনিয়ার সুবীর ভৌমিক খেলা দেখবেন স্ত্রী বাবলির সঙ্গে।

খেলা দেখার সময় নেতাজি সুভাষচন্দ্রের অন্যতম বংশধর সূর্য বসুর পাশে থাকবেন ওঁর স্ত্রী।

Advertisement

জার্মান টিভির ক্রীড়াভাষ্যকার অরুণাভ চৌধুরী খেলা দেখবেন রামসাইটের টাউন হলের সামনে বসানো ২৬ বর্গমিটারের পর্দায়, পাঁচ হাজার দর্শকের সঙ্গে।

কোলন শহরতলীতে নিজের বাগানবাড়িতে আব্দুস সাত্তার খেলা দেখবেন সাংবাদিক-স্ত্রী রুণুর সঙ্গে।

খেলা দেখতে আল ফারুখ হাইডেলবার্গে স্ত্রী মালার কাছে যাবেন, না স্ত্রী আসবেন হোরেমে, তা নিয়ে তাঁরা শনিবারও ধন্দে।

যে যেভাবেই খেলা দেখুন, কাউন্টডাউনে সময় যত যাচ্ছে, বাড়ছে জার্মানির অনাবাসী বাঙালিদের উত্তেজনার পারদ। সিংহভাগেরই প্রার্থনা, সিংহের মত খেলে জিতুক জার্মানি।

দিল্লির ভাস্বতী ১০ বছরের উপর আছেন জার্মানিতে। পিএইচডি করছেন সমাজবিজ্ঞানে। থাকেন বিশ্বখ্যাত সুরকার প্রয়াত ফ্রিডরিশ হান্ডেলের জন্মস্থান স্যাক্সনি আনহাল্ট প্রদেশে। তাঁর মনে হচ্ছে ৪-২ গোলে জিতবে জার্মানি। ‘হালে’ শহরের ফ্ল্যাটে খেলা দেখার সময়ে ভিনসেন্ট ছাড়াও পাশে থাকবেন জার্মান বন্ধু স্বেন ভিটিওয়ার। অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ার সুবীরবাবু সুযোগ পেলেই বুন্দেশলিগা-র ম্যাচ দেখেন। প্রিয় দল এফসি কোলন। জানালেন, “আমার মনে হচ্ছে জার্মানিই জিতবে। ফল হবে ২-০।”

১৯৭২-এর নভেম্বর জার্মানিতে যান সূর্য বসু। তথ্য প্রযুক্তি শিল্পের অন্যতম শীর্ষ পরামর্শদাতা সূর্যবাবু সময় পেলেই ফুটবল দেখেন। শনিবার বললেন, “দলীয় সংহতির নিরিখে জার্মানি অনেকটাই এগিয়ে। আর ব্রাজিলকে যে ভাবে জার্মানি দুরমুশ করল, তাতে জার্মানির পক্ষে বাজি না ধরে উপায় নেই।”

প্রায় চার দশক পশ্চিমী একাধিক নামী সম্প্রচারকেন্দ্রে সাংবাদিকতার পর আল ফারুখ এখন অবসরে। বুন্দেশলিগা নিয়মিত দেখেন। প্রিয় দল বিভিবি ডর্টমুন্ড। বিশ্বকাপ ফাইনাল সম্পর্কে তাঁর ধারণা, “আর্জেন্টিনার রক্ষণ ভাল খেললে জার্মানি গোল করতে সমস্যায় পড়বে। আর মেসি যদি ঝলসে ওঠে জার্মানির কপালে দুঃখ আছে। আমার তো মনে হয় ম্যাচ ফিফটি-ফিফটি।” জার্মানিতেই জন্ম ৩৭ বছরের অরুণাভ চৌধুরীর। থাকেন ছোট্ট শহর রামসাইটে। বায়ার্ন মিউনিখ দলের সহায়ক হিসাবে ২০০৮-এ ভারতে এসেছিলেন। ফাইনালে কে জিতবে? “বলা কঠিন”, মন্তব্য অরুণাভর। বার্লিনপ্রবাসী কবি-সাংবাদিক দাউদ হায়দার বললেন, “আমার ধারণা জার্মানি জিতবে। তবে এখানকার এক জ্যোতিষী ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, জিতবে আর্জেন্টিনা। চিন্তা সেই কারণেই।” ঐতিহাসিক ব্রান্ডেনবুগ গেটের সামনে ১০টি জায়ান্ট স্ক্রিন বসানো হয়েছে। এ কথা জানিয়ে দাউদ বললেন, “লাখ পনেরো দর্শক জড়ো হবে ওখানে। ওই ভিড়েই খেলা দেখব।”

জার্মানি জিতলে কী ভাবে উল্লাসে মাতবেন সে দেশের বাঙালিরা? ভাস্বতী জানালেন, “উঃ, ভাবতেই পারছি না! একটার পর একটা গাড়ি উল্লাসে হর্ন বাজাবে। রাস্তায় থাকলে আমিও অভিনন্দন জানাব চালককে।” অরুণাভ বললেন, “জার্মানি জিতলে আমার পেশায় কাজের চাপ বাড়বে।” আল ফারুখ অবশ্য বললেন, “জার্মানি জিতুক-হারুক, আমার রুটিনের হেরফের হবে না।”

এখন, মানে গ্রীষ্মে ভারতের তুলনায় জার্মানির ঘড়ির সময় সাড়ে তিন ঘন্টা পিছিয়ে। রিও-তে যখন খেলা হবে, জার্মানিতে কাজকর্ম সেরে খেলা দেখার অনেকটাই আদর্শ সময়। জার্মান পাবগুলো সেজে উঠেছে জাতীয় পতাকায়। জার্মানি জিতলে সে সবে বসবে পানীয়ের ফোয়ারা। ওদেশের বাঙালিদেরও অনেকে নিজেদের ভাসিয়ে দেবেন সেই জোয়ারে।

আরও পড়ুন

Advertisement