Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ জুন ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বেল-হীন রিয়ালের কাঁটা লাতিনের তিন

এল অর্থাত্‌ দ্য। ক্লাসিকো অর্থাত্‌ ক্লাসিক। দুটো শব্দকে একসঙ্গে জুড়লেই বিশ্ব ফুটবলের সেরা যুদ্ধ। যুগের পর যুগ যে ম্যাচ উপহার দিয়েছে নানা রোম

নিজস্ব প্রতিবেদন
২৫ অক্টোবর ২০১৪ ০২:০৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
মহাযুদ্ধের প্রস্তুতি

মহাযুদ্ধের প্রস্তুতি

Popup Close

এল অর্থাত্‌ দ্য।

ক্লাসিকো অর্থাত্‌ ক্লাসিক।

দুটো শব্দকে একসঙ্গে জুড়লেই বিশ্ব ফুটবলের সেরা যুদ্ধ।

Advertisement

যুগের পর যুগ যে ম্যাচ উপহার দিয়েছে নানা রোমাঞ্চকর মুহূর্ত। আজ, শনিবার আবার সেই দিন।

স্পেন দ্বিখণ্ডিত হবে। এক দিকে রাজকীয় রিয়াল মাদ্রিদ। অন্য দিকে কাতালুনিয়ার প্রিয় বার্সেলোনা।

এ বার তো এল ক্লাসিকোয় আবার ইউরোপ বনাম লাতিন আমেরিকা যুদ্ধ। বার্সার মেসি, নেইমার, সুয়ারেজ বনাম রিয়ালের রিয়ালের রোনাল্ডো, বেঞ্জিমা, টনি ক্রুজ।

ম্যাচটায় মেসি-নেইমারে চেয়েও যেন বার্সা সমর্থকেরা একটু বেশি আলোচনারত সুয়ারেজ নিয়ে! বিশ্বকাপে সেই কামড়-কাণ্ডে চার মাসের নির্বাসন কাটিয়ে এই মহাম্যাচেই মাঠে প্রত্যাবর্তন ঘটাচ্ছেন ‘এল পিস্তলেরো’।

অন্য দিকে রিয়াল সমর্থকদের মুখে-মুখে ফিরছে সেই নাম সিআর সেভেন। চলতি মরসুমে গোলের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন রোনাল্ডো। লা লিগায় ইতিমধ্যেই তিনটে হ্যাটট্রিক। তবে এল ক্লাসিকোয় আবার তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মেসির দুটো হ্যাটট্রিক আছে।

তবে রোনাল্ডোর মারকাটারি ফর্মেও সমস্যামুক্ত নয় রিয়াল। এল ক্লাসিকোর চব্বিশ ঘণ্টা আগেও গ্যারেথ বেলের চোট নিয়ে রীতিমতো উদ্বেগে আন্সেলোত্তির দল। ফিট হওয়ার জন্য আলাদা করে ট্রেনিং করেও তীরে এসে তরী ডুবেছে বেলের। গত মরসুমে কোপা দেল রে ফাইনালে বার্সেলোনা ডিফেন্স নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছিলেন তিনি। বের্নাবাওতে শনিবাসরীয় সন্ধেয় বেলের না থাকায় ৪-৩-৩ ফর্মেশনে খেলা রিয়ালের প্রতি-আক্রমণ নির্ভর ফুটবল স্টাইলও অনেকটা দুর্বল হবে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞমহল।

বেলের জায়গায় হয়তো খেলানো হবে ইস্কো-কে। যাঁর গতি বেশি না হোক, ফাইনাল পাসে বিপক্ষ ডিফেন্স চিরে ফেলার ক্ষমতা আছে। আর সাপোর্টে তো থাকছেনই এ বারের বিশ্বকাপে সোনার বুট জয়ী হামেস রদ্রিগেজ।

গত কয়েক বছর এল ক্লাসিকোয় রিয়াল মাঝমাঠে জাবি আলোন্সোর উপস্থিতি নিয়মিত দৃশ্য হয়ে উঠেছিল। জাবি বায়ার্ন চলে যাওয়ায় সেই দায়িত্ব এ বার পড়তে চলেছে ক্রুজের উপরে। আলোন্সোর মতোই ডাবল পিভটে খেলেন ক্রুজ। সঠিক ঠিকানা লেখা পাস বাড়ানো ছাড়াও যাঁর নিজেরও গোল করার ক্ষমতা আছে। ডিফেন্সে সেই পেপে-র‌্যামোস জুটি। ফুলব্যাকে মার্সেলো আর কারভাজাল।

ও দিকে, বার্সা ডিফেন্স আবার চলতি লা লিগা মরসুমে এখনও অটুট। একটাও গোল হজম করেনি। কার্লোস পুয়োল অবসর নিলেও চলে রক্ষণ জমাট রাখতে সফল নতুন ডিফেন্ডার জেরেমি ম্যাথিউ। যাঁর সঙ্গে মাসচেরানোর জুটি জেরার পিকে-কেও রিজার্ভ বেঞ্চে বসিয়ে রাখছে।

আবার ৪-৩-৩ ফর্মেশনে আক্রমণ বিভাগে সেন্টার ফরোয়ার্ডে খেলবেন সুয়ারেজ। যাঁর ফুটবলের ইউএসপি বলের উপর অসাধারণ ব্যালান্স। বিপক্ষের দু’-তিনজনকে ড্রিবল করেও বলটা আঠার মতো লেগে থাকে সুয়ারেজের পায়ে। দুই উইংয়ে মেসি আর নেইমার। মেসি আর দু’গোল করলেই ফের একটা পালক জুড়বেন নিজের সাফল্যের রঙিন টুপিতে। সে ক্ষেত্রে তেলমো জারার ২৫১ গোলের রেকর্ড ভেঙে তিনিই হবেন লা লিগার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

তবে এ মরসুমে মেসির চেয়েও বেশি নজর কাড়ছেন নেইমার। এই মুহূর্তে মরসুমে বার্সার হায়েস্ট স্কোরার। মেসির সঙ্গে কম্বিনেশনে আরও ভয়ঙ্কর। মেসি-নেইমারের দলের কালো ঘোড়া অবশ্য বলা হচ্ছে বার্সা ইভান রাকিটিচ-কে। চেলসিতে চলে যাওয়া ফাব্রেগাসের বদলি ক্রোয়েশিয়ার এই বিশ্বকাপারের সঠিক পাস পঁচানব্বই শতাংশ। এর থেকেই বোঝা যায় বার্সার পাসিং-বাহিনীতে নিজেকে কত সহজেই মানিয়ে নিতে পেরেছেন রাকিটিচ।

এল ক্লাসিকো দুই কোচেরও অগ্নিপরীক্ষা। এক দিকে রিয়াল কোচ কার্লো আন্সেলোত্তি। যিনি প্রথম মরসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতলেও লা লিগায় এল ক্লাসিকোয় এখনও জয় নেই তাঁর। অন্য দিকে বার্সা কোচ লুই এনরিকে। ফুটবলার জীবনে দুটো ক্লাবের হয়েই খেলেছেন। কোচ হিসেবে তাঁর এটাই প্রথম এল ক্লাসিকো। প্রথম মহাচ্যালেঞ্জ!

ক্লাসিকোর টুকিটাকি

• এখন পর্যন্ত ২২৮ এল ক্লাসিকোয় বার্সার জয় ৮৮, রিয়ালের জয় ৯১

• গোল: বার্সা ৩৭১, রিয়াল ৩৮৫

• বিখ্যাত ফুটবলার যাঁরা দুটো ক্লাবের হয়েই খেলেছেন রোনাল্ডো (বড়), বার্ন্ড শুস্টার, জিওর্জে হাজি, লুই ফিগো, মাইকেল লড্রুপ, স্যামুয়েল এটো, লুই এনরিকে, হাভিয়ের স্যাভিওলা।

দুই শিবির যা বলছে...

• লিও মেসি: জানি আর একটা গোল করলেই জারার রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলব (লা লিগায় ২৫১ গোল)। আমার কাছে তার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভাল খেলে এল ক্লাসিকোয় জেতা।

• নেইমার: আমাদের যা টিম তাতে বের্নাবাওতেও আমরা রিয়ালের বিরুদ্ধে জেতার ক্ষমতা রাখি।

• লুই সুয়ারেজ: আমি বিশ্বাস করি প্রত্যেকটা ঘটনার পিছনেই একটা কারণ থাকে। এল ক্লাসিকোয় আমার অভিষেকের পিছনেও যেমন রয়েছে। এত দল থাকতেও রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে বের্নাবাওতেই কিন্তু আমি মাঠে ফিরছি। নিশ্চয়ই এর পিছনেও কোনও কারণ রয়েছে।

• আন্দ্রে ইনিয়েস্তা: রিয়ালের কাছে জিততে মাঠের প্রত্যেকটা এরিয়ায় ওদের হারাতে হবে। আমরা পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে এটা ভাবলে চলবে না। ওদের ঘরের মাঠে হারানোটা আরও কঠিন। এটা আর পাঁচটা ম্যাচের মতো নয়। কখনও তা ছিলও না।

• লুই এনরিকে: বিপক্ষ যে-ই হোক, আন্সেলোত্তির লাইন-আপ যাই থাকুক, আমরা একই মানসিকতা নিয়ে নামব। যেটা মরসুমের গোড়া থেকে ধরে রেখেছি। লুই সুয়ারেজ এই ম্যাচে নামবে। তবে কতক্ষণ মাঠে থাকবে সেটা বলতে পারছি না। শুরু থেকে দলে থাকবে কি না সেটাও মিলিয়ন ডলারের প্রশ্ন।

• ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো: জানি না ক্লাসিকো কেন শনিবার হচ্ছে। এ ব্যাপারে (সূচি) আগেই ভাবা উচিত ছিল। চব্বিশ ঘণ্টা অতিরিক্ত বিশ্রাম পাওয়াটা (বার্সেলোনার) কিন্তু বিরাট ব্যাপার।

• কার্লো আন্সেলোত্তি: টিম দুরন্ত ফর্মে। ফোকাস আর ফিটনেসও দারুণ জায়গায়। বার্সেলোনাও খুব ভাল ফর্মে। তবে ক্লাসিকোয় নামার আগে যেমন চেয়েছিলাম ঠিক সেই জায়গায় আছি আমরা। শনিবারের ম্যাচ দারুণ একটা দলের বিরুদ্ধে আর একটা পরীক্ষা হতে চলেছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement