Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

দু’প্লেসিকে নিগ্রহ করছে চ্যানেল নাইন অভিযোগ তুলছে দক্ষিণ আফ্রিকা

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজ জিতে শেষ টেস্ট খেলতে এ দিন অ্যাডিলেড পৌঁছল দক্ষিণ আফ্রিকা। এবং সঙ্গে সঙ্গেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন অধিনায়ক ফাফ দু

অ্যাডিলেড ২২ নভেম্বর ২০১৬ ০৩:৩৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
অ্যাডিলেড বিমানবন্দরে দক্ষিণ আফ্রিকার নিরাপত্তা রক্ষীর সঙ্গে চ্যানেল নাইন সাংবাদিকের বচসা, ধাক্কা। ছবি: টুইটার

অ্যাডিলেড বিমানবন্দরে দক্ষিণ আফ্রিকার নিরাপত্তা রক্ষীর সঙ্গে চ্যানেল নাইন সাংবাদিকের বচসা, ধাক্কা। ছবি: টুইটার

Popup Close

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজ জিতে শেষ টেস্ট খেলতে এ দিন অ্যাডিলেড পৌঁছল দক্ষিণ আফ্রিকা। এবং সঙ্গে সঙ্গেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন অধিনায়ক ফাফ দু’প্লেসি। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা বল বিকৃতির অভিযোগ নিয়ে অ্যাডিলেড বিমানবন্দরে দু’প্লেসিকে প্রশ্ন করতে যান চ্যানেল নাইনের সাংবাদিক। তখন তাঁর সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন দু’প্লেসিদের নিরাপত্তা টিমের সদস্য জুনায়েদ ওয়াদি। উইল ক্রাউচ নামের ওই সাংবাদিককে ঠেলা মেরে, কাঁধের গুঁতো মেরে তাঁর হাত থেকে মাইক্রোফোন ছুড়ে ফেলে দেন ওয়াদি। তার পর জোর করে তাঁকে একটা কাচের দেওয়ালে পিঠ ঠেকিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। দু’প্লেসি ততক্ষণে হাসতে হাসতে থাম্বস আপ দেখিয়ে বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে গিয়েছেন। ঘটনায় আহত হননি ক্রাউচ।

দু’প্লেসি ঘটনাটা নিয়ে মন্তব্য না করলেও পরে হাসিম আমলা টুইট করেন, ‘রিপোর্টারদের এ ধরনের প্ররোচনামূলক আচরণে হতাশ। ভদ্র ভাবে প্রশ্ন করলে উত্তর পেলেও পেতে পারেন।’ পরে আবার দক্ষিণ আফ্রিকা চ্যানেল নাইনের বিরুদ্ধে দু’প্লেসিকে নিগ্রহের অভিযোগ তুলে দেয়। দক্ষিণ আফ্রিকার টিম ম্যানেজার ডক্টর মহম্মদ মুসাজি একটি বিবৃতিতে জানিয়েছেন যে, বল বিকৃতি কাণ্ডের মীমাংসা না হওয়া পর্যন্ত দু’প্লেসি তা নিয়ে মন্তব্য করতে পারবেন না। যে ব্যাপারটা অস্ট্রেলীয় মিডিয়াকে, বিশেষ করে চ্যানেল নাইনকে তাঁরা জানিয়ে দিয়েছিলেন। তা সত্ত্বেও তাঁদের ‘মিডিয়া প্রোটোকল’ বেমালুম অগ্রাহ্য করে গিয়েছে চ্যানেল নাইন। অ্যাডিলেড বিমানবন্দরে শুধু নয়, তার আগে মেলবোর্ন টিম হোটেলেও।

বিবৃতিতে ডক্টর মুসাজি বলেছেন, ‘‘এই নিয়ে তৃতীয় বার আমাদের প্লেয়ার কোনও রিপোর্টারের হাতে আগ্রাসী নিগ্রহের শিকার হয়েছে। বিমানবন্দরে উপস্থিত সাংবাদিক আমাদের অসম্মান করেছে এবং ফাফকে সমানে মন্তব্য করার জন্য বিরক্ত করে গিয়েছে। আরও আশ্চর্যের, ওই সাংবাদিক প্লেয়ারদের বাসে ওঠার রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল। যে জায়গায় মিডিয়ার থাকার কথা নয়।’’ মুসাজি জানিয়েছেন, ক্রাউচকে তিন বার সরে যেতে বলা হলেও তিনি তা করেননি। শুধু তাই নয়, সিরিজ কভার করার সরকারি অনুমোদনপত্র না থাকা সত্ত্বেও দু’প্লেসির দিকে নাকি ঝাঁপিয়ে পড়েন ক্রাউচ। তখন তাঁর হাতে অজানা কোনও বস্তু ছিল। ‘‘এটা আমাদের নিরাপত্তা আইনের বিরুদ্ধে,’’ বলেছেন মুসাজি।

Advertisement

টিভি ফুটেজে দেখা যায়, ক্রাউচের হাতের ‘অজানা বস্তু’ আসলে তাঁর মাইক্রোফোন। যা তাঁর হাত থেকে কেড়ে নেন নিরাপত্তারক্ষী ওয়াদি।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement