Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

রজারের নতুন অস্ত্রে রাফা-বধ

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৭ মার্চ ২০১৭ ০৩:২৭
মুখোমুখি: অস্ট্রেলীয় ওপেনের পর ইন্ডিয়ান ওয়েলসেও নাদালকে হারিয়ে দিলেন ফেডেরার। ছবি: টুইটার।

মুখোমুখি: অস্ট্রেলীয় ওপেনের পর ইন্ডিয়ান ওয়েলসেও নাদালকে হারিয়ে দিলেন ফেডেরার। ছবি: টুইটার।

সুন্দর কিন্তু ভয়ঙ্কর।

কয়েক মাস আগেও যে রজার ফেডেরারকে ঘিরে প্রশ্ন উঠত, কবে অবসর নেবেন, তিনি এখন অতীত। অস্ট্রেলীয় ওপেন জিতে যাঁর পুনর্জন্ম ঘটেছে, তিনি যেন আরও আগ্রাসী, আরও ভয়ঙ্কর।

এই আগ্রাসী ফেডেরারকেই দেখল ইন্ডিয়ান ওয়েলস। দেখলেন রাফায়েল নাদাল। যে ফেডেরারের সামনে ৬৮ মিনিটের মধ্যে উড়ে গেলেন তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী। কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার পথে ফেডেরার জিতলেন ৬-২, ৬-৩।

Advertisement

দু’মাস আগের অস্ট্রেলীয় ওপেন ফাইনালে যে লড়াই হয়েছিল, তার সামান্য আঁচও পাওয়া যায়নি বৃহস্পতিবারের ম্যাচে। ফেডেরারের বিরুদ্ধে নাদালের বরাবরের অস্ত্র ছিল সুইস তারকার ব্যাকহ্যান্ডকে আক্রমণ করা। কিন্তু অস্ট্রেলীয় ওপেনের ফাইনাল থেকেই দেখা গিয়েছে ফেডেরার তাঁর দুর্বলতাগুলো অস্ত্রে বদলে ফেলেছেন। ইন্ডিয়ান ওয়েলসে সেই ভয়ঙ্কর অস্ত্রের জোরটা টের পেলেন নাদাল। প্রথম সেটে চোখ ধাঁধানো ছ’টি ব্যাকহ্যান্ড উইনার মারেন ফেডেরার। নাদালের ক্ষেত্রে সংখ্যাটা ছিল শূন্য।

এই আগ্রাসী ঘরানার টেনিসটা খেলতে পেরে খুশি ফেডেরার। এও মেনে নিচ্ছেন, তাঁর ব্যাকহ্যান্ডের দুর্বলতা ঢেকে দিতে পেরেছেন অনেকটাই। টানা তিন বার নাদালকে হারিয়ে উঠে ফেডেরার বলছেন, ‘‘যে রকম টেনিস খেললাম, তাতে আমি খুশি। দারুণ আগ্রাসী ছিলাম কোর্টে। নিজের ব্যাকহ্যান্ড শক্তিশালী করতে পারাটা অনেক কাজে দিয়েছে।’’

মেলবোর্নের চেয়ে ইন্ডিয়ান ওয়েলসের কোর্টের গতি বেশ কম। নাদাল সেটারই ফায়দা তোলার চেষ্টায় ছিলেন। কিন্তু কোর্ট কিছুটা স্লো হলেও ফেডেরারের আগ্রাসী টেনিসকে থামাতে পারেনি। দ্বিতীয় সেটের শুরুতেই নাদালের সার্ভিস একবার ভেঙে দেওয়ার পরে আর পিছনে তাকাতে হয়নি ফেডেরারকে। এই নিয়ে পর পর তিন বার হারালেন নাদালকে। যা ফেডেরারের টেনিস জীবনে এই প্রথম। যা নিয়ে সুইস কিংবদন্তি বলছেন, ‘‘নাদালের মতো খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে টানা তিনটে ম্যাচ জিততে পারলে ভাল তো লাগবেই। তবে স্বাভাবিক ভাবেই সেরা জয়টা এসেছে অস্ট্রেলিয়া ওপেনে। ওটা আমার কাছে দারুণ গুরুত্বপূর্ণ।’’

চার বারের ইন্ডিয়ান ওয়েলস চ্যাম্পিয়নের কাছে হারের পরে নাদাল বলেছেন, ‘‘প্রথম গেমে ও আমার সার্ভিস ভেঙে দেয়। ওটাই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে যায়। রজার যখন এগিয়ে থাকে তখন ওর খেলাটা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। সার্ভটা ঠিকঠাক জায়গায় পড়ে। আত্মবিশ্বাসটা বেড়ে যায়।’’ এই অবস্থায় ফেডেরারকে যে হারানো কতটা কঠিন, সেটা ভাল করেই জানেন তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বীরা। অস্ট্রেলীয় ওপেনের পরে দুবাইয়ে ব্যর্থ হয়েছিলেন। ইন্ডিয়ান ওয়েলসে এখন পর্যন্ত দুরন্ত ফর্মে। ফেডেরারের বক্তব্য, ‘‘আমি চেয়েছিলাম, অস্ট্রেলীয় ওপেনে যে খেলাটা খেলেছিলাম, সে রকম খেলতে। কিন্তু ভাবিনি সেটা সম্ভব হবে। এখানকার কোর্টে বাউন্সটা বেশি। সব সময় ঠিক মতো শট নেওয়া যায় না।’’

তাতে অবশ্য কিছু এসে যায়নি। ফেডেরার-রথ ভালই ছুটছে।

আরও পড়ুন

Advertisement