Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

‘মিথ্যে, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কথা বলছেন বেঙ্গসরকর’

শ্রীনিবাসন জানান, ২০০৮-এর অগস্টে বোর্ডের কার্যকরি কমিটির বৈঠকে ঠিক হয়, নির্বাচক কমিটির সদস্য বোর্ডের কোনও অনুমোদিত সংস্থার প্রশাসকের পদে থাক

নিজস্ব প্রতিবেদন
১০ মার্চ ২০১৮ ০৪:৫৯
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

দিলীপ বেঙ্গসরকরের অভিযোগের পাল্টা জবাব দিলেন এন শ্রীনিবাসন। বলে দিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটারের অভিযোগ ভিত্তিহীন। সম্প্রতি বেঙ্গসরকর অভিযোগ করেছেন, ২০০৮-এ শ্রীলঙ্কা সফরে এস. বদ্রীনাথের বদলে বিরাট কোহালিকে সুযোগ দেওয়ায় তাঁকে নির্বাচক প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। তাঁর দাবি, এর পিছনে হাত ছিল বোর্ডের তৎকালীন কোষাধ্যক্ষ শ্রীনিবাসনের। এর জবাবে প্রাক্তন আইসিসি এবং বিসিসিআই প্রধান শ্রীনিবাসন বলেছেন, তিনি বেঙ্গসরকরের অভিযোগে ‘প্রচণ্ড দুঃখ’ পেয়েছেন। ‘‘এই অভিযোগ আমি পুরোপুরি অস্বীকার করছি। একেবারে মিথ্যে, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে এ সব বলা হচ্ছে,’’ বলেছেন শ্রীনিবাসন। তাঁর বক্তব্যের ব্যাখা দিতে গিয়ে শ্রীনি আরও বলেন, ‘‘আমি ব্যাপারটা একটু পরিষ্কার করে দিতে চাই। ২০০৮ সালে বেঙ্গসরকর মুম্বই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। যেটা নির্বাচিত পদ। একই সঙ্গে তিনি পুরুষদের সিনিয়র দলের নির্বাচক কমিটির প্রধানের পদে ছিলেন।’’

শ্রীনিবাসন জানান, ২০০৮-এর অগস্টে বোর্ডের কার্যকরি কমিটির বৈঠকে ঠিক হয়, নির্বাচক কমিটির সদস্য বোর্ডের কোনও অনুমোদিত সংস্থার প্রশাসকের পদে থাকতে পারবেন না। বলেন, ‘‘সেই বৈঠকে এটাও ঠিক হয়েছিল, নির্বাচক কমিটির সদস্যদের বেতন দেওয়া হবে। শরদ পওয়ার তখন প্রেসিডেন্ট ছিলেন এবং সচিব ছিলেন নিরঞ্জন শাহ। বেঙ্গসরকর মুম্বই ক্রিকেট সংস্থার ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ চালিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। তাই ওঁকে নির্বাচকের পদ ছাড়তে হয়।’’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement