Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০২ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

দিল্লিতে ‘মোদীর খেলা’, কলকাতা ‘মমতাময়’, দ্বন্দ্ব জারি ফুটবল উৎসবেও

শহর সাজানো প্রায় শেষ। মুখ্যমন্ত্রীর তৈরি থিম সং ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সমস্ত ব্লকে, ট্রাফিক সিগন্যালে, এফএমে, টিভিতে, ইউটিউবে, ফেসবুকে। পুরনো হি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ও নয়াদিল্লি ০৬ অক্টোবর ২০১৭ ০৪:০১
Save
Something isn't right! Please refresh.
ফুটবল-রাজ্য: যুবভারতী চত্বরে বসেছে এই মূর্তি। —নিজস্ব চিত্র।

ফুটবল-রাজ্য: যুবভারতী চত্বরে বসেছে এই মূর্তি। —নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

উদ্বোধন যদি হয় মোদীর ‘খেলা’, তা হলে কলকাতায় বিশ্ব ফুটবলের পার্বণকে ‘মমতাময়’ করতে কোনও ফাঁক রাখছে না রাজ্য সরকারও।

শহর সাজানো প্রায় শেষ। মুখ্যমন্ত্রীর তৈরি থিম সং ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সমস্ত ব্লকে, ট্রাফিক সিগন্যালে, এফএমে, টিভিতে, ইউটিউবে, ফেসবুকে। পুরনো হিট গানের ছায়ায় মমতা লিখেছেন, ‘সব খেলার সেরা বাংলার তুমি ফুটবল।’ কেন্দ্র যেমন গাইয়েছে মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়, শান, মিকাদের দিয়ে, তেমনই মমতার গানে গলা মিলিয়েছেন গায়ক-মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন।

যুবভারতীর মূল প্রবেশপথের স্থাপত্যের নকশা করেছেন মমতা স্বয়ং। ২৮ ফুটের এক ফুটবলার-মূর্তি। দু’পায়ে দু’টি বল, কোমরের ওপরে ‘বিশ্ব বাংলা’র গোলক। মূর্তিটি তৈরি করেছেন সুব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের কথায়, ‘‘বিশ্বের দরবারে বাংলাকে হাজির করতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর ফুটবল তো মেলবন্ধনের খেলা।’’

Advertisement



যুব বিশ্বকাপ নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সক্রিয় ছিল প্রথম থেকেই। দিল্লি নেমেছে শেষ মুহূর্তে। কিছু দিন আগে কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী রাজ্যবর্ধন রাঠৌরের কাছে প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয় জানতে চায়, প্রথম খেলার আগে সংক্ষিপ্ত উদ্বোধন অনুষ্ঠানের আয়োজক ফিফা হলেও ক্রীড়া মন্ত্রক কী কী ব্যবস্থা করেছে? আসলে বিজয় গয়াল ক’দিন আগে পর্যন্ত ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলেন। তিনিই সমস্ত আয়োজন করছিলেন। শেষ বেলায় দায়িত্ব পেয়েছেন রাঠৌর।



ঝকঝকে: সংস্কারের পরে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন। ছবি: সুদীপ্ত ভৌমিক

এফএমে প্রচার চলছে দিল্লিতেও। সক্রিয় প্রসার ভারতী। প্রধানমন্ত্রী নিজে জানাচ্ছেন, ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে ফুটবল কী ভাবে জড়িত। বিজেপির এক নেতার মন্তব্য, ‘‘ফুটবল যে শুধু বাংলা, কেরল আর গোয়ার ব্যাপার নয়, সেটাই প্রমাণ করতে চাই।’’ প্রফুল্ল পটেল মুম্বইয়ে ম্যাচ আনতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ম্যাচ হাসিল করেছে দিল্লি।

আরও পড়ুন:১২জন প্রাক্তনকে নিয়ে অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের বোধন করবেন মোদী

দিল্লির থিম সঙের ভিডিওতে আছেন সচিন তেন্ডুলকর, ভাইচুং ভুটিয়ারা। পশ্চিমবঙ্গের থিম সঙে দেখা যাচ্ছে সুব্রত ভট্টাচার্য, প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, গৌতম সরকারদের। আছে ভিক্টোরিয়া, শহিদ মিনার, পুরুলিয়ার ছৌ, উত্তরবঙ্গের চা-বাগান। দিল্লির থিম সঙে আবার সারা দেশের সংস্কৃতি।

অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের মঞ্চেও বেশ জমে গিয়েছে মোদী-দিদি লড়াই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement