Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

সরে যাওয়া ছাড়া আর কোনও রাস্তা ছিল না, বলছেন কুম্বলে

কুম্বলে তাঁর বিবৃতিতে জানিয়েছেন, কোহালির সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের ভাঙনের জেরেই তিনি সরে দাঁড়াতে বাধ্য হলেন। কুম্বলের কথা অনুযায়ী, ভারতীয় ক্রিকে

নিজস্ব প্রতিবেদন
২১ জুন ২০১৭ ০৪:২৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

অনিল কুম্বলের পদত্যাগের মধ্যে দিয়েই ভারতীয় ক্রিকেটে কোচ-নাটকের যবনিকা পড়ল না। বরং মঙ্গলবার গভীর রাতে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠল। যখন টুইটার এবং ফেসবুকের মাধ্যমে নিজের ইস্তফাপত্র জনসমক্ষে তুলে ধরলেন অনিল কুম্বলে। এবং, নিজের পদত্যাগের পিছনে তিনি সরাসরি দায়ী করলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালিকে।

কুম্বলে তাঁর বিবৃতিতে জানিয়েছেন, কোহালির সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের ভাঙনের জেরেই তিনি সরে দাঁড়াতে বাধ্য হলেন। কুম্বলের কথা অনুযায়ী, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে গত কালই তিনি জানতে পারেন, বিরাট তাঁর সম্পর্কে কী মনোভাব পোষণ করেন। এবং, সেটা জানার পরে সরে দাঁড়ানো ছাড়া তাঁর কোনও উপায় ছিল না।

কুম্বলে তাঁর ইস্তফাপত্রে লিখেছেন, ‘‘আমার ওপর ক্রিকেট অ্যাডভাইসারি কমিটি যে আস্থা দেখিয়েছিল, তার জন্য আমি সম্মানিত। গত এক বছরে যাবতীয় সাফল্যের কৃতিত্ব ভারতীয় দলের অধিনায়ক, গোটা দল, কোচ এবং সাপোর্ট স্টাফের।

Advertisement

গত কালই বোর্ড আমাকে জানায় যে ক্যাপ্টেন আমার ‘স্টাইল’ এবং কোচের পদে বহাল থাকা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে। যা শুনে খুব অবাক হই, কারণ কোচ-ক্যাপ্টেন সম্পর্কের সীমা আমি বরাবরই মেনে এসেছি। ক্যাপ্টেন ও আমার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি মেটানোর চেষ্টা বোর্ড করেছে। কিন্তু তা যে ঠিক হওয়ার নয়, সেটা বোঝাই গিয়েছিল। সেই কারণেই ভাবলাম নিজেকে সরিয়ে নেওয়াই ভাল।

আরও পড়ুন: কোহালি চান না, তাই সরেই দাঁড়ালেন কুম্বলে

পেশাদারিত্ব, শৃঙ্খলা, দায়বদ্ধতা, সততা, দক্ষতা এবং ভাবনার বৈচিত্র— এগুলো সবই আমি দলকে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। এগুলোর মূল্য দেওয়া উচিত ছিল। কোচের ভূমিকা আমার কাছে দলের খেলোয়াড়দের সামনে আয়না তুলে ধরার মতো। যাতে তারা উন্নতি করতে পারে।’’

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সচিন তেন্ডুলকর, ভিভিএস লক্ষ্মণের ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি বিরাট এবং কুম্বলের সঙ্গে বৈঠক করেও সমাধানসূত্র বার করতে পারেনি। বরং পরিস্থিতি আয়ত্ত্বের বাইরে চলে যায়।

এমনিতেই কুম্বলের এই ইস্তফা নিয়ে জোড় আলোড়নের সৃষ্টি হয়েছে। সুনীল গাওস্কর, বিষাণ সিংহ বেদীর মতো প্রাক্তনরা মনে করেন, ভারতীয় ক্রিকেটের পক্ষে এটা একটা খারাপ দিন। বেদী টুইট করেছেন, ‘কুম্বলের সরে দাঁড়ানোটা আমার কাছে অপ্রত্যাশিত নয়। এই পরিস্থিতিতে কারও পক্ষে কাজ করা সম্ভব নয়’।

এ বার কুম্বলের এই ইস্তফাপত্র প্রকাশ্যে চলে আসায় বিতর্ক যে বাড়বে, তা নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।



Tags:
Anil Kumble BCCI Resignation London Cricketঅনিল কুম্বলে
Something isn't right! Please refresh.

Advertisement