Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

যে দিন বুঝব জোরে দৌড়তে পারছি না, অন্য কিছু ভাবব

বিশাখাপত্তনমে যে মেজাজে শেষ করেছিলেন, সে ভাবেই শুরু করলেন মুম্বইয়ে! পার্থক্য বলতে সে দিনেরটা ছিল মাঠের ভেতর, আজকেরটা মাঠের বাইরে। সে দিন হাত

চেতন নারুলা
মুম্বই ০৮ জুন ২০১৬ ০৫:০২
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

২১ মে, ২০১৬।

৭ জুন ২০১৬।

বিশাখাপত্তনমে যে মেজাজে শেষ করেছিলেন, সে ভাবেই শুরু করলেন মুম্বইয়ে!

Advertisement

পার্থক্য বলতে সে দিনেরটা ছিল মাঠের ভেতর, আজকেরটা মাঠের বাইরে। সে দিন হাতে ছিল ব্যাট, আজ হাতে মাইক!

মহেন্দ্র সিংহ ধোনি।

পুণে সুপারজায়ান্টসের শেষ আইপিএল ম্যাচে শেষ ওভারে ২৩ রানের টার্গেট তাড়া করে ২৪ তুলেছিলেন অধিনায়ক ধোনি তিনটে ওভার বাউন্ডারি সমেত।

মঙ্গলবার ভারতীয় দলের জিম্বাবোয়ে যাত্রার ঠিক আগে সাংবাদিক সম্মেলনেও অধিনায়ক ধোনি যেন তিনটে ছক্কা হাঁকালেন!

তাঁর বহুচর্চিত অবসরের দিনক্ষণ প্রসঙ্গে বলে দিলেন, ‘‘এটা বিসিআইকে ঠিক করতে হবে।’’ সদ্য প্রাক্তন টিম ডিরেক্টর রবি শাস্ত্রী সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন, ‘‘ধোনির উপর ক্যাপ্টেন্সির দায়িত্ব না থাকলে ও ব্যাটিংটা আরও উপভোগ করতে পারবে।’’ ধোনির এ দিনের পরের মন্তব্যটা যেন শাস্ত্রীয় বচনের প্রতিক্রিয়া— ‘‘এমনও নয় যে আমি নিজের খেলাটাকে আর যথেষ্ট উপভোগ করছি না।’’

দিন কয়েক ধরে শোনা যাচ্ছে, বোর্ড নাকি হিন্দি জানা কোচ ভারতীয় দলের জন্য নিয়োগ করতে আগ্রহী। ভারতের সীমিত ওভারের দলের অধিনায়কের সেই প্রসঙ্গে অভিমত, ‘‘কোচ হিন্দিতে সড়গড় কি না সেটা নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মাথাব্যথা নেই। বরং সেই কোচের আমাদের দেশের সংস্কৃতি বোঝাটা গুরুত্বপূর্ণ। ভাষার আদানপ্রদান নিয়ে কোনও বড় সমস্যা নেই। ভারতীয় দলে যে ধরনের ছেলেরা আসে ইংরেজি ভাষাটা তাদের কাছে বড় কোনও বাধা নয়। কোচের তাই হিন্দি বা ইংরেজির চেয়ে বেশি দরকার আমাদের ছেলেরা কী ভাবে বেড়ে উঠেছে সেটা বুঝতে পারা।’’



পঁয়ত্রিশেও তাঁর দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার তীব্র আগ্রহ দেখে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে, সেই ফিটনেস কি এখনও ধোনির আছে? যা নিয়ে তিনি স্বয়ং এ দিন বললেন, ‘‘যে দিন দৌড়তে গিয়ে বুঝব যথেষ্ট জোরে দৌড়তে পারছি না সে দিন কিছু একটা ভাবব। একজন উইকেটকিপার হিসেবে আমি জানি আমাকে কতটা ওয়ার্কলোড নিতে হবে। এও জানি ফিটনেসের ব্যাপারে আমাকে কোন কোন জায়গায় খাটতে হবে। আর এই মুহূর্তে আমি ফিটনেস নিয়েই ভাবি।’’

সাম্প্রতিক ভারতীয় ক্রিকেটের তিনটে জ্বলন্ত প্রশ্নের জবাবেই ধোনি যেন হেলিকপ্টার শট নিলেন মিডিয়া রুম থেকেই!

জিম্বাবোয়ে সফরে চলতি মাসের মধ্যে তিনটে ওয়ান ডে আর দু’টো টি-টোয়েন্টি খেলতে ধোনি যে জাতীয় দল নিয়ে যাচ্ছেন, তাতে অনেক নতুন মুখ। সিনিয়ররা প্রায় কেউ নেই-ই। এমনও কেউ কেউ ভাবছেন, পরের বছর ৫০ ওভারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আর ২০১৯ বিশ্বকাপের (যে দু’টো বড় টুর্নামেন্টই ইংল্যান্ডের মাঠে) দিকে তাকিয়ে ধোনির হাতে এ রকম একটা তারুণ্যে ভরা দল তুলে দিয়েছেন নির্বাচকেরা। যা নিয়ে ধোনির অবশ্য ব্যাখ্যা, ‘‘আমি মনে করি দু’হাজার উনিশের বিশ্বকাপ নিয়ে এখনই কথা বলাটা একটু বেশিই তাড়াতাড়ি হয়ে যাচ্ছে। সামনের কয়েক বছরে অনেক কিছু ঘটবে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি কাছাকাছি আছে। কিন্তু তার আগে তো আবার আমরা খুব বেশি ওয়ান ডে ম্যাচ খেলছি না। বরং অনেক বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলার কথা ভারতের এ মরসুমে। সে জন্য আমার মনে হয়, প্রত্যেকটা ওয়ান ডে ম্যাচই আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। জিম্বাবোয়ে সফরও তাই কঠিন।’’

ধোনি এমনও মনে করেন, শুধু আইপিএলের পারফরম্যান্স দেখে মনদীপ সিংহ, যজুবেন্দ্র চাহালদের জাতীয় দলের জন্য বিচার করা হয়নি। ‘‘আইপিএল অবশ্যই প্রতিভা স্পট করার একটা প্ল্যাটফর্ম। কিন্তু একমাত্র প্যারামিটার নয়। আইপিএলে আমাদের ছেলেরা যতই বিদেশিদের সঙ্গে খেলুক, আদতে এটা একটা ঘরোয়া টুর্নামেন্ট। আপনি যখন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট খেলবেন তখন আইপিএলের সঙ্গে পার্থক্যটা বুঝতে পারবেন। অন্য ধরনের চাপ টের পাবেন। ফলে এই তরুণদের নিজেদের প্রতিভার প্রমাণ আন্তর্জাতিক ম্যাচে দিতে হবে। ওরা বেশির ভাগই ভাল ফিল্ডার। আর সবাই ঘরোয়া ক্রিকেটে ভাল করার পুরস্কার পেয়েছে।’’



Tags:
Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement