পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও তামিলনাড়ুর মতো দু’-একটি রাজ্যে ছোট ছোট পাম্প স্টোরেজ প্রকল্প থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যায়। তবে মডেল বা আদর্শ হয়ে ওঠার সুযোগ এসেছে পশ্চিমবঙ্গ, বিশেষ করে পুরুলিয়া জেলার সামনেই।

খোদ কেন্দ্রীয় সরকারই পুরুলিয়া পাম্প স্টোরেজ জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের মধ্যে আদর্শ হয়ে ওঠার বৈশিষ্ট্য খুঁজে পেয়েছে। তারা চাইছে, ওই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আদলে অন্যান্য রাজ্যেও অনুরূপ প্রকল্প গড়ে উঠুক। জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের এই ব্যবস্থাকে জনপ্রিয় করে তুলতে তারা শীঘ্রই উদ্যোগী হচ্ছে বলে বিদ্যুৎ মন্ত্রক সূত্রের খবর। শুধু অভিপ্রায় প্রকাশ করেই থেমে থাকতে চাইছে না কেন্দ্র। একেবারে নীতির বাঁধনে বিষয়টি স্থায়ী এবং বলবৎ করতে চাইছে তারা।

কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎমন্ত্রী পীযূষ গয়াল সম্প্রতি কলকাতায় এক অনুষ্ঠানে জানান, সব রাজ্যকেই অনুরোধ করা হবে, সুযোগ থাকলে তারা যেন পাম্প স্টোরেজ প্রকল্প গড়ে তোলার উপরে জোর দেয়। ফেব্রুয়ারি-মার্চের মধ্যে এই বিষয়ে সুনির্দিষ্ট নীতি তৈরি করা হতে পারে বলে বিদ্যুৎ মন্ত্রকের খবর।

কেন্দ্রের উদ্যোগে গুয়াহাটিতে সম্প্রতি সব রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রীদের বৈঠক হয়। বিভিন্ন রাজ্য সেখানে বিদ্যুৎ ক্ষেত্রে নিজেদের সাফল্যের ছবি তুলে ধরার সঙ্গে সঙ্গে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথাও জানায়। এ রাজ্যের পক্ষ থেকে নতুন তাপবিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের পাশাপাশি পুরুলিয়ার অযোধ্যা পাহাড়ে পাম্প স্টোরেজ জলবিদ্যুৎ প্রকল্প সম্প্রসারণের বিষয়টি তুলে ধরা হয় সেই বৈঠকে।

পাম্প স্টোরেজ জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের ক্ষেত্রে পাহাড়ের গায়ে উপরে ও নীচে দু’টি জলাধার গড়ে তোলা হয়। দিনের যে-সময়ে বিদ্যুতের চাহিদা কম থাকে, তখন নীচের জলাধার থেকে পাম্প করে জল তোলা হয় উপরের জলাধারে। যখন বিদ্যুতের চাহিদা বাড়ে, তখন উপরের জমা জল নীচের জলাধারে ফেলে টার্বাইন ঘুরিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়। এর ফলে গ্রীষ্মে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলির উপরে চাপ কমে। বিদ্যুৎ-মাসুলও কিছুটা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

দেশের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গই প্রথম পুরুলিয়ায় অযোধ্যা পাহাড়ের কোলে ৯০০ মেগাওয়াটের একটি পাম্প স্টোরেজ জলবিদ্যুৎ প্রকল্প গড়েছে। অযোধ্যা পাহাড়ে তুর্গা নামে আরও একটি ১০০০ মেগাওয়াটের নতুন পাম্প স্টোরেজ জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র গড়ে তোলার পরিকল্পনাও করছে রাজ্য।

কেন্দ্রীয় বিদ্যুৎ মন্ত্রকের এক কর্তা জানান, পাম্প স্টোরেজ প্রকল্প থেকে গোটা দেশে ৯০ হাজার মেগাওয়াটের বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদনের সম্ভাবনা আছে। কিন্তু হয় মাত্র ৪৫০০ মেগাওয়াটের কিছু বেশি। ১৫০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন পাম্প স্টোরেজ প্রকল্প এখন নির্মীয়মাণ।