বহরমপুরের সৈয়দাবাদ এলাকায় তৃণমূলের এক কর্মীকে মারধরের ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। 

রবিবার রাতে জখম তৃণমূল কর্মী সত্যব্রত দত্তকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। অভিযোগ, ওই তৃণমূল কর্মীকে এলাকার এক কংগ্রেস সমর্থক লোহার রড দিয়ে বেধড়ক মারধ করে বলে তৃণমূলের অভিযোগ। যদিও কংগ্রেস ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

এ ব্যাপারে আক্রান্ত তৃণমূল কর্মী বহরমপুর থানায় অভিযুক্ত তাপস মণ্ডল ওরফে কিরণশঙ্কর মণ্ডলের  বিরুদ্ধে  লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

তৃণমূল কর্মী সত্যব্রত দত্ত  জানান, ঘটনার সময়ে তিনি সৈয়দাবাদের রাধাবল্লভপাড়া এলাকায় নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন। সেই সময় প্রতিবেশী  যুবক তাপস মণ্ডলের সঙ্গে ভোট নিয়ে তাঁর সঙ্গে বচসা বাধে। হঠাৎ তাপস উত্তেজিত হয়ে বাড়ি থেকে লোহার রড নিয়ে এসে তাঁকে মারধ করতে থাকে। তাঁর ডান কানে, ঘাড়ে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত লাগে।  তিনি প্রাণভয়ে চিৎকার করতে  শুরু করলে তার মোবাইল ভেঙে সে পালিয়ে যায়। 

ওই কর্মীর সিটি স্ক্যান হয়েছে। ডান কানে গুরুতর আঘাত লেগেছে বলে হাসপাতাল থেকে জানা গিয়েছে। জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র অশোক দাস বলেন, ‘‘বহরমপুরের ৪ নম্বর  ওয়ার্ডের  এক দলীয় কর্মীকে লোহার রড দিয়ে আক্রমণ করা হয়েছে। দোষী ব্যক্তিকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছি।”

জেলা কংগ্রেসের নেতা হিরু হালদার বলছেন, ‘‘অভিযুক্ত যুবকের সঙ্গে কংগ্রেসের কোনও সম্পর্ক নেই।  কংগ্রেসের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলা হচ্ছে।

জেলা পুলিশের এক কর্তা জানান, পাড়ায় ঝামেলার জেরে একজন আক্রান্ত হয়েছেন। অভিযুক্তকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। তবে সে ঘটনার পর থেকে পলাতক।”