রাতারাতি এসএসসি-র ওয়েট লিস্ট পাল্টে যাওয়া নিয়ে এ বার শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন অশোক ভট্টাচার্য। ‘চূড়ান্ত দুর্নীতি’ বলে উল্লেখ করে শিলিগুড়ির মেয়র এই ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত দাবি করেছেন। সঠিক তালিকা প্রকাশ না হওয়া পর্যন্ত এই তালিকা থেকে নিয়োগ বন্ধ রাখার আর্জিও জানিয়েছেন বাম বিধায়ক।

সম্প্রতি রাষ্ট্রবিজ্ঞানের শিক্ষক নিয়োগের (তফসিলি জাতি, মহিলা) মেধাতালিকার ওয়েট লিস্ট প্রকাশ করা হয়। সেখানে তালিকায় প্রথম নামটিই ছিল ববিতা বর্মন। কিন্তু দু’দিন পর সেই তালিকায় পরিবর্তন করা হয়। তাতে ববিতা বর্মনের নাম সরে গিয়ে এক নম্বরে না প্রকাশিত হয় অঙ্কিতা অধিকারীর।

পরে জানা যায়, এই অঙ্কিতা অধিকারী প্রাক্তন ফরওয়ার্ড ব্লক নেতা তথা সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া পরেশ অধিকারীর মেয়ে। স্কুল সার্ভিস কমিশনে যোগাযোগ করা হলে জানানো হয়, ‘টেকনিক্যাল ফল্ট’। কিন্তু এই খবর প্রকাশিত হওয়ার পরই হইচই পড়ে যায়। স্কুল সার্ভিসে পরীক্ষায় বসা প্রার্থীরা এবং ওয়েট লিস্টে নাম থাকা অন্য প্রার্থীরা অভিযোগ তোলেন, নিয়োগে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে। প্রাক্তন মন্ত্রী পরেশ অধিকারী তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পরই তাঁর মেয়ের নাম এক নম্বরে তুলে আনা হয়েছে বলেও একটা বড় অংশের অভিযোগ ছিল।

অশোক ভট্টাচার্যের সেই চিঠির প্রতিলিপি। 

আরও পড়ুন: রাতারাতি বদলে গেল স্কুল সার্ভিসের ওয়েট লিস্ট, শীর্ষে সদ্য তৃণমূলে আসা নেতার মেয়ে!

আরও পড়ুন: কাজ কই? কড়া ধমক মুখ্যমন্ত্রীর

এ বার এই ঘটনাতেই উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের দাবি করে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন শিলিগুড়ির মেয়র-বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য। চিঠিতে প্রাক্তন পুরমন্ত্রী অশোকের বক্তব্য, কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে এই প্রকাশিত খবর সত্যি হলে এটি হবে চূড়ান্ত দুর্নীতি। উত্তরবঙ্গে এ নিয়ে ব্যাপক আলোড়ন ছড়িয়েছে। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, এই ঘটনায় বিচারবিভাগীয় তদন্তের প্রয়োজন। বিষয়টি তিনি বিধানসভাতেও তুলবেন বলে জানিয়েছেন অশোকবাবু।

বাংলার রাজনীতি, বাংলার শিক্ষা, বাংলার অর্থনীতি, বাংলার সংস্কৃতি, বাংলার স্বাস্থ্য, বাংলার আবহাওয়া - পশ্চিমবঙ্গের সব টাটকা খবর আমাদের রাজ্য বিভাগে।