একাধিক মামলা আছে তাঁর বিরুদ্ধে। বিনপুরের শিলদা ইএফআর ক্যাম্পে মাওবাদী হামলার মামলা তারই একটি। সেই মামলায় অভিযুক্ত মাওবাদী নেতা অর্ণব দামের জামিন বৃহস্পতিবার মঞ্জুর করেছে কলকাতা হাইকোর্ট। তবে সরকারি আইনজীবীরা জানান, হাইকোর্ট জামিন দিলেও ওই নেতা এখনই জেল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন না। কারণ কলকাতা পুলিশের একটি মামলাতেও তিনি অভিযুক্ত।

বিচারপতি জয়মাল্য বাগচী ও বিচারপতি মনোজিৎ মণ্ডলের ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন ওই মাওবাদী নেতার জামিন শর্তসাপেক্ষে মঞ্জুর করে রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে, ছ’মাসের মধ্যে নিম্ন আদালতে বিচার প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে। আদালতের শর্ত, বিচারের প্রয়োজন ছাড়া অর্ণব সোনারপুর থানা এলাকার বাইরে যেতে পারবেন না। তাঁকে এক দিন অন্তর সোনারপুর থানায় নিয়মিত হাজিরা দিতে হবে। বিচারের সময় উপস্থিত থাকতে হবে নিম্ন আদালতে।

সরকারি কৌঁসুলি শাশ্বতগোপাল মুখোপাধ্যায় ও অরুণ মাইতি জানান, ২০১০ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি শিলদা ক্যাম্পে মাওবাদী হামলায় ২৪ জন ইএফআর-কর্মী মারা যান। সেই মামলায় অর্ণব-সহ ২৩ জন অভিযুক্ত।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

অর্ণবের কৌঁসুলি মহম্মদ মেহবুব আহমেদ আদালতে জানান, মামলার ৩০ জন সাক্ষীর এক জনও তাঁর মক্কেলকে শনাক্ত করেননি। তাঁর মক্কেল মেধাবী ছাত্র। বিচার প্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রতার জন্য তাঁকে অযথা জেলে থাকতে হচ্ছে। তিনি প্রধান অভিযুক্তও নন। অর্ণবের জামিন মঞ্জুর হওয়ায় একটি মানবাধিকার সংগঠনের পক্ষে রঞ্জিত শূর জানান, শিলদার ঘটনায় গত ন’বছরে এই প্রথম এক জন জামিনের আবেদন করলেন। অভিযুক্তদের মধ্যে এক আদিবাসী যুবকও আছেন।