বেশিরভাগ দোকানপট বন্ধ। রাস্তাঘাট শুনশান। রাস্তায় মানুষজন নেই তেমন একটা। রবিবার বিজেপির ডাকা ১২ ঘণ্টা বন্‌ধের ব্যাপক প্রভাব পড়ল পুরলিয়ায়। তিন দিনের মধ্যে দুই বিজেপি কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যু, দু’জনেরই দেহ পাওয়া গিয়েছে ঝুলন্ত অবস্থায়। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরেই খুন বলে দাবি করে পুরুলিয়ায় ১২ ঘণ্টার বন্‌ধ ডেকেছে বিজেপি। এর মধ্যেই বিজেপি নেত্রী  লকেট চট্টোপাধ্যায় যান বলরামপুরে। মৃত দুলাল কুমার ও ত্রিলোচন মাহাতোর পরিবারের সঙ্গে তিনি দেখা করেন। সিবিআই-এর মতো সংস্থাকে দিয়ে দুই মৃত্যুর তদন্ত করানোর দাবিও করেন তিনি।  

এ দিন পুরুলিয়ার প্রাণকেন্দ্র বলে পরিচিত সাহেববাঁধ সংলগ্ন এলাকায় ধরা পড়ল শুনশান দৃশ্য। এমনিতেই রবিবার ছুটির দিন, তার উপর সমস্ত দোকান পাটের ঝাঁপ বন্ধ। পুরুলিয়া শহরের বুক চিরে জামশেদপুরের দিকে চলে গিয়েছে চাইবাসা রোড বা ৩২ নম্বর জাতীয় সড়ক। তার দু’ধারে ছড়িয়ে থাকা বলরামপুর কিংবা কাটাডির মতো জনপদ। পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি দারুণ ফলের মধ্যে দিয়ে যে এলাকা গুলো উঠে এসেছে খবরের শিরোনামে।

জাতীয় সড়ক ধরে যত এগোচ্ছি, ততই দেখা যাচ্ছে তেতে ওঠা গরম হাওয়ায় গেরুয়া পতাকা উড়ছে পত পত করে। অন্য কোনও দলের পতাকা চোখেই পড়ে না। রাস্তায় মোটরবাইকে সওয়ার বিজেপি কর্মীদের টহলদারি। পুলিশ রয়েছে ইতিউতি। কিন্তু চারদিকে যেন থমথমে ভাব। গত ৩১ মে বলরামপুরের সুপুরডি গ্রামের গাছে গলায় দড়ি বাঁধা অবস্থায় পাওয়া যায় বিজেপি কর্মী ত্রিলোচন মাহাতোর দেহ। তিন দিনের মাথায়, গত শুক্রবার বলরামপুরের ডাভায় যেন সুপুরডির ঘটনার পুনরাবৃত্তি। হাইটেনশন টাওয়ারে দুলাল কুমারের দেহ ঝুলছে দেখে ক্ষোভে ফেটে পড়েন বিজেপি কর্মীরা। দু’জনকেই খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের। বিজেপির অভিযোগ, পঞ্চায়েত নির্বাচনে পুরুলিয়ায় ভাল হওয়ায় তাদের উপর নেমে আসছে তৃণমূলের আক্রমণ।

দেখুন ভিডিয়ো

 

আরও পড়ুন: দুলালকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল, তাড়া করেছিল বাইক, বলছেন গ্রামবাসীরা

এ দিন ৩২ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে পুরুলিয়া ছাড়াতেই জায়গায় জায়গায় রাস্তা অবরোধ। পুলিশেরই রোড রেলিং আর ইট-পাথর দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে রাস্তা। ফলে দু’পাশেই সার বেঁধে দাঁড়িয়ে লরি। জামশেদপুর থেকে আসার উপায় নেই, আবার যাওয়াও যাচ্ছেনা। পুলিশ রয়েছে, কিন্তু বিজেপি কর্মীদের রণংদেহী মূর্তির সামনে তাঁরা যেন অসহায়। অবরোধ তোলার কোনও চেষ্টা আপাতত চোখে পড়ছে না।

বলরামপুরে বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। নিজস্ব চিত্র।

আরও পড়ুন: পড়ে রয়েছে বাড়া ভাত, ছেলে এল না

আড়শা ব্লকে কাটাডি মোড়ের কাছে দেখা বিজেপির মণ্ডল কমিটির সভাপতি সুভাষ মাহাতোর সঙ্গে। তাঁর দাবি, ‘‘পরিকল্পনা করেই বিজেপি কর্মীদের খুন করা হচ্ছে। দু’টি মুত্যরই নিরপেক্ষ তদন্ত চাই।’’ সব মিলিয়ে পুরুলিয়ায় রাজনৈতিক চাপান উতোর তুঙ্গে। গ্রীষ্মের গরমকে হারিয়ে যেন বেড়েই চলেছে রাজনৈতিক উত্তাপ।