এক বেলার জন্য বাজারের কিছু দোকানপাট খুলল। কিন্তু দমবন্ধ করা, থমথমে ভাবটা কাটল না।

রবিবার আর নতুন করে অশান্ত হয়নি ভাটপাড়া-কাঁকিনাড়া। কিন্তু রাস্তাঘাটে লোকজন কমই ছিল। চলেনি বাসও। সূর্য ডুবতেই দোকানপাটেরও ঝাঁপ বন্ধ হয়। ব্যারাকপুরের নতুন পুলিশ কমিশনার মনোজ বর্মা দুপুরে ঘোষপাড়া রোড এবং কিছু গলিতে টহল দেন। সাধারণ মানুষ এবং মোড়ে মোড়ে পাহারায় থাকা পুলিশকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। বাইরে থেকে আসা কাউকে দেখলেই তল্লাশির নির্দেশ দেন পুলিশ কমিশনার।

রবিবার বাইরের নেতা-মন্ত্রীরা এ তল্লাটে আসেননি। এলাকাবাসীও আর ভিআইপি-দের ভিড় চাইছেন না। তাঁরা শান্তি চান। এলাকার সাংসদ অর্জুন সিংহ সকালে জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে কাঁকিনাড়া বাজারে ঘুরে ব্যবসায়ীদের দোকান খোলার আবেদন জানান। পুলিশও ব্যবসায়ীদের অভয় দেয়। তার পরেই কিছু দোকানপাট খোলে। তবে, নতুন করে অশান্তি হলে কী হবে, তা নিয়ে ধন্দে ব্যবসায়ীরা। সরাসরি সাংসদকেই তাঁরা সে প্রশ্ন করেন। অর্জুন বলেন, “আমরা আছি, পুলিশও দেখছে। প্রয়োজনে আপনারা একজোট হয়ে থাকুন। যাতে বাইরের কেউ এসে অশান্তি পাকাতে না-পারে।”  

বেলার দিকে সোনা-রুপো ব্যবসায়ী এবং কাঁকিনাড়া-ভাটপাড়ার কয়েকটি স্কুলের শিক্ষকদের নিয়ে বৈঠক করেন অর্জুন। সেখানে পুলিশকর্তারাও ছিলেন। ব্যবসায়ীদের দোকান খোলার জন্য অনুরোধ করা হয়। ওই ব্যবসায়ীরা সাংসদকে জানান, দোকান লুট হলে তাঁরা পথে বসবেন। ফলে, জোরদার নিরাপত্তার আশ্বাস না-পেলে তাঁরা দোকান খুলতে পারবেন না। শিক্ষকেরা জানান, তাঁরাও চান দ্রুত স্কুল চালু হোক। কিন্তু নিরাপত্তার ব্যবস্থা না-হলে ছাত্রছাত্রীরা আসতে ভয় পাচ্ছে। অভিভাবকেরাও সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে চাইছেন না। পুলিশকর্তারা তাঁদের নিরাপত্তার আশ্বাস দেন। জানানো হয়, স্কুলের সময়ে রাস্তায় যথেষ্ট পুলিশ মোতায়েন করা হবে। স্কুলেও নজরদারি চলবে। এ ছাড়াও ব্যবসায়ী এবং শিক্ষকদের দাবিমতো কাঁকিনাড়ার ৪ ও ৫ নম্বর রেল সাইডিং এলাকায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তারও আশ্বাস দিয়েছে পুলিশ। 

এ দিন পুলিশ কমিশনারকে রাস্তায় টহল দিতে দেখে অনেক বাসিন্দা বাড়ি থেকে বেরিয়ে এসে তাঁর কাছে বোমা-গুলি, অশান্তি বন্ধের আবেদন জানান। পুলিশ মনে করছে এলাকায় প্রচুর বোমা মজুত রয়েছে। শনিবার রাতেও পুলিশ বেশ কিছু তাজা বোমা উদ্ধার করেছে। গ্রেফতার করা হয়েছে অন্তত ১০ জনকে। রবিবারেও ব্যারাকপুর-কাঁচরাপাড়া রুটের ৮৫ নম্বর বাস চলেনি। ফলে, ভাটপাড়া-কাঁকিনাড়ার সঙ্গে ভোগান্তি পোহাতে হয় পলতা, ইছাপুর, জগদ্দল, শ্যামনগর, নৈহাটি-সহ বিস্তীর্ণ এলাকার বাসিন্দাদের। ভাটপাড়ায় শুধু দু’-একটি অটো-টোটো চলতে দেখা গিয়েছে। আজ, সোমবার কাঁকিনাড়া-ভাটপাড়ার বাজার বন্ধ থাকে। ফলে প্রায় এক মাস ধরে অশান্ত এই জনপদ স্বাভাবিক ছন্দে ফিরল কিনা, তা মঙ্গলবারেই স্পষ্ট হবে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।