আইনি বাধা কাটার পরে ১৬৯২টি গ্রাম পঞ্চায়েতে কাল, বৃহস্পতিবার বোর্ড গঠনের কাজ শুরু হতে চলেছে। সব ক্ষেত্রেই শাসক দলের প্রাধান্য। প্রথম দফার মতো এ বারেও বোর্ড গঠন পর্বে বিক্ষিপ্ত ভাবে অশান্তির আশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না প্রশাসনিক কর্তারা। তবে অশান্তি এড়াতে রণকৌশলও স্থির করেছে শাসক দল।

বৃহস্পতিবার গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে চলবে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ১৮ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত পঞ্চায়েত সমিতি এবং ২০ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জেলা পরিষদের বোর্ড গড়ার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে পঞ্চায়েত দফতর। প্রথম দফায় ১৫১৫টি গ্রাম পঞ্চায়েত গঠনের জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। অশান্তির জন্য তার আট শতাংশ গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন স্থগিত রয়েছে। সেগুলি দ্রুত গঠনের পাশাপাশি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার জটে আটকে থাকা গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনের কাজটা শান্তিতে সেরে ফেলাও প্রশাসনের কাছে চ্যালেঞ্জ।

শাসক শিবিরের দাবি, অশান্তির আশঙ্কা ক্ষীণ। শাসক দল সূত্রের খবর, দ্বিতীয় দফায় গ্রাম পঞ্চায়েত গঠনের আগে বৈঠক হয়েছে সর্বত্রই।