• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দলের মিডিয়া ইনচার্জকে আক্রমণ করে ঝাঁঝালো টুইট চন্দ্র বসুর, তোলপাড় রাজ্য বিজেপি

Chandra Kumar Bose
বিজেপি নেতা চন্দ্র বসু।—ফাইল চিত্র।

Advertisement

পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির মিডিয়া সেলের ইনচার্জকে এখনই তাড়িয়ে দেওয়া হোক। তা যদি না হয়, তিনিই তাঁকে লাথি মেরে এ রাজ্য থেকে বার করে দেবেন। বিজেপি নেতা চন্দ্র বসুর এমনই একটি মন্তব্যকে ঘিরে রাজ্য বিজেপিতে তোলপাড় শুরু হয়ে গিয়েছে।

শনিবার রাতে সম্বিত পাত্রকে একটি টুইট করেন চন্দ্র। সেখানে রাজ্য বিজেপির মিডিয়া সেলের ইনচার্জ সপ্তর্ষি চৌধুরীর নামে যা-তা কথা বলেন। টুইটে তিনি লেখেন, “পশ্চিমবঙ্গের  বিজেপি মিডিয়া সেল একটা অপদার্থ। এদের নিয়োগ করেছে কে? এদের বরখাস্ত করুন।” ওই টুইটে সম্বিত পাত্রকে চন্দ্র আরও বলেন, “সপ্তর্ষিকে তাড়িয়ে দিন। না তাড়ালে আমিই ওঁকে রাজ্য থেকে লাথি মেরে বার করে দেব।” এ ধরনের বেফাঁস মন্তব্যের পরই চরম বিতর্কের মুখে পড়েছেন এই বিজেপি নেতা।

বিজেপির এক জন উজ্জ্বল মুখ চন্দ্র। তাঁর মুখ থেকে এমন মন্তব্য নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে দলের অন্দরেই। প্রশ্ন উঠেছে, এমন এক জন নেতা হয়ে দলের মিডিয়া ইনচার্জের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে এমন কথা বলেন কী করে? যদিও এই মন্তব্যের পর দলের কেউই এখনও পর্যন্ত চন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি। চন্দ্র বসুকে এ ব্যাপারে ফোন করা হলেও তিনি ফোন তোলেননি। সপ্তর্ষি চৌধুরীর কাছে এ প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, “চন্দ্র বসু এক জন সিনিয়র নেতা। তাঁর সম্পর্কে প্রকাশ্যে কিছু বলা উচিত নয়। এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করব না।”

আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে অধীর অনুগামী, সোমেন বললেন ‘গুরুত্বই নেই’

চন্দ্র বসুর বিতর্কিত সেই টুইট।

অন্য দিকে, রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুর কাছেও চন্দ্রের এই বেফাঁস টুইট নিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছিল। তিনি বলেন, “শুনেছি তিনি এ রকম একটা টুইট করেছেন। কেন এমন করলেন জানি না। তবে ওঁর সঙ্গে কথা না বলে কোনও মন্তব্য করব না।”

আরও পড়ুন: ‘হিন্দুত্ববাদী’দের টার্গেটে গুগল ম্যাপস

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন