বাড়ির অদূরেই রাস্তা থেকে কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠল তাঁরই প্রাক্তন প্রেমিক-সহ তিন জনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই প্রেমিকের নাম প্রসেন রং। দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের ঘটনা।

অপহরণের ১৩ ঘণ্টা পর রবিবার সকালে ওই ছাত্রীকে সোনারপুর তেমাথার মোড় থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, জেরায় ছাত্রীটি তাদের কাছে জানিয়েছে, অপহরণের পর তাঁকে প্রথমে খেয়াদায় একটি নির্মীয়মাণ বাড়িতে আটকে রাখা হয়। তার পর সেখান থেকে সোনারপুর তেমাথার মোড়ে নিয়ে আসা হয়। গোপন সূত্রে খবর পেয়েই পুলিশ রবিবার ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন: প্রেমিকার টানেই খুন!

আরও পড়ুন: শিক্ষককে মারধরের প্রতিবাদে মৌনী মিছিল

কলকাতার আশুতোষ কলেজে তৃতীয় বর্ষে পড়েন ওই ছাত্রী। বাড়ি সোনারপুরের ভৌমিক পাড়ায়। ছাত্রীটি খুবই দরিদ্র পরিবারের। পড়াশোনার পাশাপাশি একটি মোবাইলের দোকানেও কাজ করেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রতি দিনের মতোই কাজ সেরে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। রাত তখন সাড়ে ন’টা। বাড়ি ফেরার জন্য একটি টোটোতে উঠেছিলেন তিনি। অভিযোগ, মন্দিরতলার সামনে আগে থেকেই একটি গাড়ি দাঁড়িয়ে ছিল। টোটোটি মন্দিরতলায় আসতেই মূল অভিযুক্ত প্রসেন-সহ তিন জন পথ আটকায়। টোটো চালকের পাশের আসনেই বসে ছিলেন ছাত্রীটি। প্রসেন ও তার সঙ্গীরা ছাত্রীটির হাত ধরে টানাটানি করতে থাকে। টোটো চালক কিছু বলতে গেলে তাঁর কপালে আগ্নেয়াস্ত্র ঠেকিয়ে হুমকি দেয় এক যুবক। তার পরই মেয়েটিকে টানতে টানতে নিয়ে গিয়ে গাড়িতে তুলে চম্পট দেয় প্রসেনরা।

ছাত্রীটির পরিবার ওই রাতেই সোনারপুর থানায়  প্রসেনের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন। তদন্তে নেমে পুলিশ ছাত্রীটিকে উদ্ধার করতে পারলেও খোঁজ মেলেনি প্রসেনের। খোঁজ পাওয়া যায়নি অপহরণের জন্য ব্যবহার করা গাড়িটিরও।