• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অন্য রোগীদের পরিষেবা দিতে আবার বার্তা

health
ছবি: পিটিআই।

বেসরকারি স্বাস্থ্যক্ষেত্রে ‘নন-কোভিড’ রোগীরা যে পরিষেবা পেতে অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন তা কার্যত স্বীকার করে নিল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। একই সঙ্গে পরিষেবা ‘পুনরুদ্ধারে’ শুক্রবার বিশদে অ্যাডভাইজ়রি জারি করার পাশাপাশি ‘পরামর্শ’ না মানলে ওয়েস্ট বেঙ্গল এস্টাব্লিশমেন্ট অ্যাক্টে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছে স্বাস্থ্য ভবন।

গত মঙ্গলবার সাতটি চিকিৎসক সংগঠনের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠকের প্রেক্ষিতে রোগী ফেরানো নিয়ে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে বার্তা দেন মুখ্যসচিব রাজীব সিংহ। পরদিন রোগী ফেরানো যে কোনও অবস্থায় যাবে না, তা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের সূত্র ধরে একটি অ্যাডভাইজ়রিও জারি করে স্বাস্থ্যভবন। কিন্তু তাতে যে পরিস্থিতি বদলায়নি তা দুই চিকিৎসকের ঘটনা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে। একাধিক বেসরকারি হাসপাতাল ঘুরে চিকিৎসক শিবশঙ্কর মুখোপাধ্যায়কে ভর্তি করতে না পেরে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ক্ষোভ উগরে দেন তাঁর শ্যালক। এম আর বাঙুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

এই ঘটনার পরপরই বেসরকারি হাসপাতালের এক কার্ডিওথোরাসিক সার্জন শ্বাসকষ্টজনিত কারণে তাঁর ভাইকে ভর্তি করতে গিয়ে কী ধরনের অসুবিধার সম্মুখীন হন তা স্বাস্থ্য কমিশনের সদস্য-চিকিৎসকদের নজরে এনেছিলেন। করোনা-আতঙ্কে একাধিক হাসপাতাল ওই রোগীকে ফিরিয়ে দেন। কিন্তু ওই সারি রোগীর করোনা-রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। যার প্রেক্ষিতে রোগীর চিকিৎসক দাদা বলেছিলেন, ‘‘নিজে চিকিৎসক হয়েও ভাইকে কোনও হাসপাতালে ভর্তি করতে পারিনি। তা হলে সাধারণ মানুষের কী অবস্থা।’’ 

আরও পড়ুন: করোনা-আক্রান্তে সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি স্বাস্থ্যসচিবের চিঠিতে

ওই দু’টি ঘটনা এদিন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পরে বিকালে দ্বিতীয় দফায় বিশদে অ্যাডভাইজ়রি জারি করে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। এদিনের অ্যাডভাইজ়রিতে বলা হয়েছে, ব্লাড ট্রান্সফিউশন, ডায়ালিসিস, কেমোথেরাপি, স্ত্রীরোগ, প্রাতিষ্ঠানিক সন্তান প্রসব, টিকাকরণ-সহ একাধিক রোগের পরিষেবা পেতে বেসরকারি স্বাস্থ্যক্ষেত্রে সাধারণ মানুষ ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। অ্যাডভাইজ়রির বক্তব্য, কোভিড আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে হয় পরিষেবা নিষ্ক্রিয় রয়েছে, নয় তো রোগীদের 

নানা অজুহাতে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। রোগী ভর্তির শর্ত হিসাবে কিছু বেসরকারি হাসপাতাল কোভিড-মুক্ত শংসাপত্র আনার কথাও বলছে। এই পরিস্থিতির বদল ঘটাতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে পরিষেবা স্বাভাবিক রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: বুঝিনি এতটা ভয়ানক সময় অপেক্ষা করে আছে

যার প্রেক্ষিতে হাসপাতালে সংক্রমণ রুখতে কী ধরনের ব্যবস্থা নিতে হবে সেই সংক্রান্ত একাধিক নির্দেশিকাও অ্যাডভাইজ়রির সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

অ্যাডভাইজ়রির বক্তব্য, ‘‘সমস্ত বেসরকারি হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্রকে পরিকল্পনা করে পরিষেবা স্বাভাবিক রাখার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। 

নির্দেশ না মানলে তা ভাল ভাবে নেওয়া হবে না। ওয়েস্ট বেঙ্গল ক্লিনিক্যাল এস্টাব্লিশমেন্ট অ্যাক্টে নির্দেশ লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’

অ্যাসোসিয়েশন অব হসপিটালস ইন ইস্টার্ন ইন্ডিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট রূপক বড়ুয়া বলেন, ‘‘আমরা সকলে স্বাভাবিক পরিষেবা ফিরিয়ে আনতে বদ্ধপরিকর। রোগীদের যে ভোগান্তি হচ্ছে তা কেউ চাই না। হাসপাতাল পরিষেবা সচল রাখতে আর্থিক সমস্যার মধ্যে দিয়ে বেসরকারি হাসপাতালগুলি চলছে এটাও ঠিক। করোনা রোগীর চিকিৎসা করতে গিয়ে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছেন, সেই সংক্রান্ত কিছু সমস্যাও রয়েছে। সে সব সামলে আশা করি দ্রুত পরিষেবা স্বাভাবিক করা সম্ভব হবে।’’ চিকিৎসক সংগঠন ডোপার (ডক্টরস ফর পেশেন্ট) তরফে চিকিৎসক শারদ্বত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘খুলে দিন বলে শুধু অ্যাডভাইজ়রি জারি করলে হবে না। বেসরকারি হাসপাতাল, চিকিৎসকদের ব্যক্তিগত চেম্বার কী ভাবে খুলে রাখা হবে তা নিয়ে একটি অভিন্ন স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর তৈরি করা প্রয়োজন। নইলে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকেই যাবে।’’

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন