• নিজস্ব প্রতিবেদন 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাজ্যে লকডাউন: গা-ছাড়া মনোভাব নিয়েই চিন্তা আজ

Chandni Chowk
ঠাসাঠাসি: আজ রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন। তার আগের দিন, বুধবার স্বাস্থ্য-বিধি শিকেয় তুলে ভিড় চাঁদনি মার্কেট চত্বরে। ছবি: সুদীপ্ত ভৌমিক

জুন মাসের ৮ তারিখ থেকে রাজ্যে আনলক পর্ব শুরু হয়েছে। ধীরে ধীরে বাড়ছে ছাড়ের সীমা। কিন্তু করোনা সংক্রমণও বাড়ছে তরতর করে। ফলে ফের লকডাউনের পথে রাজ্য। একটানা নয়, সপ্তাহে দু’দিন। এ পর্বের লকডাউন শুরু হচ্ছে আজ, বৃহস্পতিবার। চলতি সপ্তাহে ফের শনিবার লকডাউন হবে। আগামী সপ্তাহে প্রথম লকডাউনের দিন ধার্য হয়েছে বুধবার। দ্বিতীয় দিন পরে ঘোষণা করবে প্রশাসন। 

আনলক পর্বে করোনা-বিধি মেনে চলার ব্যাপারে নাগরিকদের মধ্যে শিথিল মনোভাব দেখা গিয়েছে। তাই ফের সম্পূর্ণ লকডাউন সফল করাই এখন রাজ্য সরকারের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। ফলে রীতিমতো কোমর বেঁধেছে পুলিশ-প্রশাসন। রাজ্য জুড়ে চলছে ঘোষণাও। এরই মধ্যে বারাসত পুর এলাকায় আগামী শনিবার থেকে পরের শুক্রবার পর্যন্ত সাত দিনের জন্য সম্পূর্ণ লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। সংক্রমণ ঠেকাতেই এই পদক্ষেপ বলে প্রশাসন জানিয়েছে। 

রাজ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত কলকাতায়। এই অবস্থায় সাপ্তাহিক লকডাউন কঠোর ভাবে আরোপ করতে থানাগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে লালবাজার। শহরের বিভিন্ন বাজারে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। শহরের তিরিশটি জায়গায় নাকা-তল্লাশি চলবে। অপ্রয়োজনে রাস্তায় বেরোলে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে। 

আরও পড়ুন: রাজ্যে এক দিনে সর্বাধিক করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যু

উত্তরবঙ্গে পাঁচটি শহরে সার্বিক লকডাউন চলছেই। পূর্ণ লকডাউনে কড়াকড়ি বাড়বে বলে শিলিগুড়ি পুলিশ জানিয়েছে। কোচবিহারেও কড়া হয়েছে প্রশাসন। সপ্তাহে দু’দিন লকডাউনের সঙ্গেই বীরভূম জেলার সিউড়ি, বোলপুর, সাঁইথিয়া, রামপুরহাট, নলহাটি, দুবরাজপুর— এই ছ’টি শহরে ২৪ জুলাই থেকে ৩১ জুলাই টানা ৮ দিন বিকেল ৩টে থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত আংশিক লকডাউন থাকবে। জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু বলেন, ‘‘এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়ার পরে মন্তব্য করব।’’ 

বন্ধ ব্যাঙ্ক, ডাকঘর, গ্যাস

• আজ ও আগামী বুধবার ব্যাঙ্ক বন্ধ। আপাতত কিছু দিন প্রতি শনিবার বন্ধের নির্দেশ মিলেছে আগেই

• আজ ও শনিবার ডাকঘর বন্ধ। বুধবার নিয়ে এখনও কিছু বলা হয়নি

• তিন দিনই বন্ধ গ্যাসের দোকান, বন্ধ বটলিং প্লান্টও

খোলা পেট্রল পাম্প

• আজ, শনিবার ও বুধবার পেট্রল পাম্প খোলা। তবে লকডাউনের বাইরে থাকা যানবাহনই তেল পাবে

লকডাউন নিয়ে বুধবার পূর্ব মেদিনীপুরে জেলা পুলিশ লিফলেট বিলি করেছে। বিভিন্ন ব্লকে মাইক প্রচার করেছে পঞ্চায়েত। পশ্চিম মেদিনীপুরেও মাইকে প্রচার হয়েছে। ঝাড়গ্রামেও সকাল থেকে বিভিন্ন রাস্তায় পুলিশ মোতায়েন থাকবে। পূর্ণ লকডাউনের পাশাপাশি সপ্তাহে পাঁচ দিন আংশিক লকডাউনের পথে এগিয়েছে খড়্গপুর শহরের করোনার টাস্ক ফোর্স কমিটি। 

আরও পড়ুন: বড়কর্তাদের নামের ভয় দেখিয়ে তোলা আদায়!

মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশও রাস্তায় নেমে প্রচার শুরু করেছে। পূর্ব বর্ধমানের বিভিন্ন এলাকায় প্রচার চালায় প্রশাসন। পশ্চিম বর্ধমানের দুর্গাপুর শহরে পাঁচটি গণ্ডিবদ্ধ এলাকা তৈরি করা হয়েছে। বুধবার বিকেল থেকে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।  বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর শহরের কন্টেনমেন্ট জ়োনে পুলিশের বাড়তি নজর থাকবে। পুরুলিয়া শহর, আদ্রা, ঝালদা শহরে কয়েকটি কন্টেনমেন্ট জ়োন রয়েছে। বুধবার বিকেল থেকে বিভিন্ন এলাকায় মাইকে প্রচার করে কী কী খোলা থাকবে ও কী কী বন্ধ থাকবে তা জানানো হচ্ছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন