জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) কার্যকর করার উদ্যোগের বিরুদ্ধে ‘সশস্ত্র প্রতিরোধ’ গড়ে তোলার ডাক দিল মাওবাদীরা। কিছু দিনের মধ্যেই এনআরসি-র বিরুদ্ধে গণ-আন্দোলনে নামার কথা ঘোষণা করেছে তারা। সিপিআই (মাওবাদী)-র কেন্দ্রীয় কমিটির পূর্বাঞ্চলীয় ব্যুরোর তরফে বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে,  ‘এনআরসি-র মাধ্যমে ভারতের জনগণকে আধুনিক যুগের ক্রীতদাসে পরিণত করার চক্রান্তকে পরাস্ত করতে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তুলুন’। এনআরসি-র বিরুদ্ধে বিজেপি-বিরোধী অন্যান্য দলগুলি যে সব যুক্তি দিচ্ছে, সেগুলি দেওয়ার পাশাপাশি অন্য একটি দিক থেকেও কেন্দ্রের এই নীতিকে নিশানা করছে মাওবাদীরা। তাদের ব্যাখ্যা, কেন্দ্র জানিয়েছে, এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সুতরাং, ওই তালিকায় নাম না থাকা ব্যক্তিদের বাংলাদেশে পাঠানোর সুযোগ নেই। তা  সত্ত্বেও এনআরসি কার্যকর করার উদ্দেশ্য— বিশাল সংখ্যক ভারতবাসীকে রাষ্ট্রহীন করে দিয়ে, সংবিধান স্বীকৃত সমস্ত আইনি অধিকার কেড়ে নিয়ে তাঁদের যৎসামান্য বেতন বা মজুরিতে কাজ করতে বাধ্য করা। আর যাঁরা নাগরিকত্বের স্বীকৃতি পাবেন, অর্থনীতির চাহিদা ও জোগানের নিয়ম অনুযায়ী, তাঁদেরও বেতন বা মজুরি কমে যাবে। এই প্রেক্ষিতেই এনআরসি ঠেকাতে ‘সশস্ত্র প্রতিরোধ’-এর ডাক দিয়েছে মাওবাদীরা।