ভাটপাড়ায় শান্তি ফেরানোর দাবিতে একসঙ্গে পথে নেমেছিলেন বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র, মহম্মদ সেলিম, সোমেন মিত্রেরা। এ বার ব্যারাকপুরে কংগ্রেসের অবস্থান কর্মসূচিতে যোগ দিলেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সিপিএমের নেতারা। দু’দলেরই বক্তব্য, বিজেপি এবং তৃণমূলের মোকাবিলায় যৌথ ভাবেই এখন আন্দোলন-কর্মসূচি চলবে।

ধর্মীয় বিভাজন ও মেরুকরণের রাজনীতি এবং সন্ত্রাসের প্রতিবাদে জেলায় জেলায় গণ-অবস্থান কর্মসূচি নিয়েছে কংগ্রেস। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা কংগ্রেসের (শহরাঞ্চল) ডাকে বৃহস্পতিবারের অবস্থান কর্মসূচি ছিল ব্যারাকপুর স্টেশন চত্বরে। এআইসিসি-র তরফে প্রদেশ কংগ্রেসের সহ-পর্যবেক্ষক বি পি সিংহ, শুভঙ্কর সরকার, কৃষ্ণা দেবনাথ, বিধায়ক কাজী আব্দুর রহিম, জেলা কংগ্রেস সভাপতি (শহরাঞ্চল) তাপস মজুমদারেরা সেখানে ছিলেন। ওই মঞ্চেই উপস্থিত হয়েছিলেন প্রাক্তন সাংসদ তড়িৎ তোপদার, সিপিএমের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য গার্গী চট্টোপাধ্যায়েরা।

তড়িৎবাবু বলেন, দু’পক্ষের মধ্যে রাজনৈতিক বোঝাপড়া করেই এখন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে। গার্গীর বক্তব্য, ‘‘এই কর্মসূচিতে কংগ্রেস নেতৃত্ব আমাদের দলকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। দলে আলোচনা করেই এখানে প্রতিনিধিত্ব করতে এসেছি।’’ কংগ্রেস নেতা শুভঙ্করবাবু বলেন, ‘‘তৃণমূল এবং বিজেপির বাইরে রাজ্যের মানুষ একটি বিকল্প চান। লোকসভা ভোটে সেই বিকল্প আমরা দিতে পারিনি। এখন কংগ্রেস এবং সিপিএম, দু’দলকেই ‘ইগো’ ছেড়ে রাজনৈতিক বিকল্প গড়ে তুলতে হবে। শুধু নির্বাচনী আঁতাঁতের অপেক্ষায় থাকলে হবে না।’’ তৃণমূলের ধ্বংসাত্মক রাজনীতি ও বিজেপির বিভাজনের নীতির বিরুদ্ধে সরব হন সব বক্তাই।