এনসিটিই (ন্যাশনাল কাউন্সিল ফর টিচার এডুকেশন)-এর নিয়ম না-মেনে উচ্চ প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগে প্রশিক্ষণহীন এবং তুলনায় কম নম্বর পাওয়া প্রার্থীদের নথিপত্র যাচাই করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছেন কয়েকশো প্রার্থী। বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্য মঙ্গলবার স্কুল সার্ভিস কমিশন (এসএসসি)-কে নির্দেশ দিয়েছেন, নিয়ম মেনে চার সপ্তাহের মধ্যে মামলাকারীদের নথিপত্র যাচাইয়ের বিষয়টি বিবেচনা করতে হবে।

প্রার্থীদের আইনজীবী সুবীর সান্যাল, দিব্যেন্দু চট্টোপাধ্যায় ও ভিষক ভট্টাচার্য বুধবার জানান, ২০১৫ সালের অগস্টে উচ্চ প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা (টেট) নেওয়া হয়। পরীক্ষায় বসেন দু’লক্ষেরও বেশি প্রশিক্ষিত ও প্রশিক্ষণহীন প্রার্থী। পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগের ওই পরীক্ষার ফল বেরোয় পরের বছর। ২০১৮ সাল থেকে প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতার নথি ‘ভেরিফিকেশন’ বা যাচাই শুরু হয়। দ্বিতীয় দফার নথি যাচাই পর্বে অভিযোগ ওঠে, যে-সব প্রশিক্ষণহীন প্রার্থী প্রশিক্ষিতদের তুলনায় কম নম্বর পেয়েছেন, অনেক ক্ষেত্রে তাঁদের নথিপত্র যাচাই করা হচ্ছে। এসএসসি-র আইনজীবী কনককিরণ বন্দ্যোপাধ্যায় আদালতে জানান, নিয়ম মেনেই নথিপত্র যাচাই হচ্ছে। আদালত এসএসসি-কর্তৃপক্ষকে আরও কিছু সময় দিক।