ভরা এজলাস। চার্জ গঠনের আগে শুনানি চলছে। হঠাৎই চেঁচামেচি জুড়ে দিলেন অভিযুক্তেরা। আদালতে দাঁড়িয়েই হুমকি দিতে শুরু করলেন, চার্জ গঠন হলে তাঁরা আত্মহত্যা করবেন! হকচকিয়ে গেলেন উপস্থিত আইনজীবীরা। এমনকি বিচারকও।

পিনকন অর্থ লগ্নি সংস্থার বিরুদ্ধে মামলায় ২ জুলাই এই ঘটনা ঘটেছে তমলুক আদালতে। বিচারক মৌ চট্টোপাধ্যায় নির্দেশনামায় লিখেছেন, শুনানির সময় এমন আচরণ মেনে নেওয়া যায় না। এর পুনরাবৃত্তি যাতে না-হয়, অভিযুক্তদের আইনজীবীদের সেটা দেখতে বলেছেন তিনি। কাল, শুক্রবার ফের এই মামলার চার্জ গঠনের দিন ধার্য হয়েছে।

তদন্তকারীরা জানান, পশ্চিমবঙ্গে প্রায় ৬৩৮ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আছে পিনকনের
বিরুদ্ধে। রাজস্থানেও গ্রেফতার হয়েছিলেন পিনকন-কর্তারা। এ রাজ্যে পিনকনের বিরুদ্ধে তদন্তে প্রচুর তথ্য পাওয়া গিয়েছে। সেগুলির বেশির ভাগই কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কে রয়েছে। সেই জন্যই সাইবার আইনে অভিজ্ঞ বিভাস চট্টোপাধ্যায়কে এই মামলার বিশেষ আইনজীবী করা হয়েছে।

অভিযুক্তেরা হাইকোর্টে জামিন চেয়েছিলেন। কিন্তু তা খারিজ হয়ে গিয়েছে। শুনানিতে স্থগিতাদেশও নেই। নিম্ন আদালতের নথিতেও তার উল্লেখ করেছেন বিচারক। এই পরিস্থিতিতে এজলাসে অভিযুক্তদের আত্মহত্যার হুমকি নতুন মাত্রা যোগ করেছে। বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি বিভাস চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রমাণ প্রচুর। চার্জ গঠন করে যাতে দ্রুত বিচার করা না-হয়, তাই ওঁদের এমন আচরণ।’’