রাজ্যের সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে বিশেষ নজর দিয়ে সংগঠন মজবুত করার জন্য বাংলার বিজেপি ও আরএসএস নেতাদের পরামর্শ দিলেন সঙ্ঘ-প্রধান মোহন ভাগবত। বিজেপি সূত্রে ভাগবতের পরামর্শকে ‘মতাদর্শগত’ দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখানোর চেষ্টা হলেও রাজনৈতিক শিবিরের ব্যাখ্যা, জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) ফলে উদ্ভুত পরিস্থিতির কারণেই এমন উপদেশ। নাগরিকপঞ্জি বাংলাতেও চালু হবে হবে ঘোষণা করে চলেছেন বিজেপি নেতারা। বাংলাদেশের সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় বসবাসকারী মানুষের মধ্যে তার জেরে আতঙ্কের বাতাবরণ বেশি। এই কারণেই সীমান্তবর্তী এলাকার দিকে নজর দিতে সঙ্ঘ-প্রধান পরামর্শ দিয়েছেন বলে ওই পর্যবেক্ষকদের মত।

বিভিন্ন রাজ্যে গিয়েই ইদানীং কয়েক দিন করে কাটিয়ে গেরুয়া শিবিরের নেতা ও বিশিষ্টদের সঙ্গে কথা বলছেন ভাগবত। বাংলাতেও তিনি এসেছেন তিন দিনের কর্মসূচিতে। রাজ্যের বিজেপি ও সঙ্ঘ নেতাদের সঙ্গে তাঁর রুদ্ধদ্বার বৈঠক হয়েছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ রবিবার বৈঠক প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘‘সংগঠনের বিস্তার, রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি, হিংসার পরিবেশ নিয়ে সরসঙ্ঘচালকের সঙ্গে কথা হয়েছে।’’ এনআরসি নিয়ে কোনও পরামর্শ কি উনি দিয়েছেন? দিলীপবাবু বলেন, ‘‘এনআরসি নিয়ে কথা হয়নি। তবে উনি বলেছেন সীমান্তবর্তী এলাকাগুলিতে সংগঠন মজবুত করতে।’’ ওই ধরনের এলাকায় বেশির ভাগ লোকসভা আসনই তো এ বার বিজেপি জিতেছে? দিলীপবাবুর বক্তব্য, ‘‘আমরা সে কথা বলেছি। উনি বলেছেন, শুধু ভোটের নয়, মতাদর্শগত ভাবে সংগঠন মজবুত করতে হবে।’