• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

গণশক্তির প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্তের জীবনাবসান

sitaram
প্রয়াত অভীক দত্তকে শেষ শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করছেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।—নিজস্ব চিত্র।

প্রয়াত হলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক তথা রাজ্য সিপিএমের দলীয় মুখপত্র ‘গণশক্তি’র প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্ত। মঙ্গলবার সকাল ৬টা ২০ মিনিট নাগাদ দক্ষিণ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান। বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর।

২০১৮ সালের ২ ডিসেম্বর দমদমের নাগেরবাজারে একটি সভায় বক্তব্য রাখার সময় তিনি আচমকাই অসুস্থ হয়ে পড়েন। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে তার পর থেকেই তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। সম্প্রতি অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে দক্ষিণ কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই এ দিন সকালে তিনি মারা যান। তাঁর স্ত্রী এবং এক ছেলে রয়েছেন।

সাংবাদিক বা গণশক্তির সম্পাদক পরিচয়ের বাইরেও তিনি ছিলেন সিপিএম-এর রাজ্য কমিটির সদস্য। তাঁর মৃত্যুর খবরে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু এবং সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

অভীক দত্ত।—ফাইল চিত্র

আরও পড়ুন: এনপিআর রুখুন, বিরোধী বৈঠকে ডাক সনিয়াদের

সকালে অভীক দত্তের দেহ দক্ষিণ কলকাতার ওই বেসরকারি হাসপাতালেই রাখা ছিল। সেখান থেকে সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ দেহ প্রথমে তাঁ তপসিয়ার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ দেহ নিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে সিপিএমের রাজ্য সদর দফতরে। সেখান থেকে নিয়ে যাওয়া হয় ‘গণশক্তি’ দফতরে। পত্রিকার দফতরে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত ছিলেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসু প্রমুখেরা। সেখান থেকে তাঁর দেহ প্রেস ক্লাবে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সকলের শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের জন্য বেলা একটা থেকে দেড়টা পর্যন্ত সেখানেই তাঁর দেহ শায়িত রাখা হবে। তার পরে শেষকৃত্যের জন্য দেহ নিয়ে যাওয়া হবে নিমতলা শ্মশানে।

অভীক দত্তের প্রয়াণে ইতিমধ্যেই শোকপ্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এ দিন রাজভবনের তরফে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়, ‘‘প্রখ্যাত সাংবাদিক তথা গণশক্তি পত্রিকার প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্তের প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তাঁর পরিবার, বন্ধু এবং সহকর্মীদের সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন