ব্যারাকপুরে বহু দলীয় অফিস বেদখল তৃণমূলের
এলাকার মানুষ জানিয়েছেন, দোকান-বাড়ি-ক্লাব ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, বোমাবাজি, লুটপাট বাদ যায়নি কিছুই। তৃণমূলের বেশ কয়েকটি পার্টি অফিস দখলেরও অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের তির বিজেপির দিকে।
tmc

প্রতীকী ছবি।

ভাটপাড়া বিধানসভা উপ-নির্বাচনের দিন থেকেই গোলমাল-হিংসা ছড়িয়েছিল ভাটপাড়া-কাঁকিনাড়া জুড়ে। ভোটের ফল প্রকাশের পরে, শুক্রবার সেই অশান্তি ছড়িয়ে পড়ল ব্যারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিস্তীর্ণ এলাকায়। 

এলাকার মানুষ জানিয়েছেন, দোকান-বাড়ি-ক্লাব ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, বোমাবাজি, লুটপাট বাদ যায়নি কিছুই। তৃণমূলের বেশ কয়েকটি পার্টি অফিস দখলেরও অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের তির বিজেপির দিকে। বিজেপির সদ্য নির্বাচিত সাংসদ অর্জুন সিংহ অবশ্য দলের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। 

পুরো ঘটনায় আতঙ্কিত এলাকার বাসিন্দারা। তাঁরা বাড়ি থেকে বেরোতে ভয় পাচ্ছেন। শুক্রবারও কাঁকিনাড়ার দোকানপাট খোলেনি। এ দিন বিকেলে অর্জুন অবশ্য পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখানে এলাকায় শান্তি ফেরানো নিয়েই মূলত আলোচনা হয়। অর্জুনের বিধায়ক পুত্র পবন সিংহ এ দিন সন্ধ্যায় এলাকার নাগরিকদের সঙ্গে বৈঠক করে এলাকায় শান্তি বজায় রাখার আবেদন করেন। 

নৈহাটির বিধায়ক তৃণমূলের পার্থ ভৌমিকের অভিযোগ, বৃহস্পতিবার রাত থেকেই ভাটপাড়া, কাঁকিনাড়া, নৈহাটিতে বিজেপির ‘বাহিনী’ একের পর এলাকায় হামলা করে তাঁদের বহু পার্টি অফিস দখল করে নেয়। ভাটপাড়ার গোলঘরে তাঁদের দু’টি পার্টি অফিস ভাঙচুর করে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়। নৈহাটি পুরসভা পরিচালিত একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে তালা দিয়ে তাতে বিজেপির ঝান্ডা লাগিয়ে দেওয়া হয়। অভিযোগ, এলাকায় এলাকায় বিজেপির বাইক বাহিনী ত্রাস সৃষ্টি করে। 

শুক্রবার সকাল থেকে ফের গোলমাল শুরু হয় ভাটপাড়া জুড়ে। অভিযোগ, কাঁকিনাড়া এলাকায় একদল দুষ্কৃতী বাড়ি বাড়ি ঢুকে ভাঙচুর-লুটপাট শুরু করে। তাতে এলাকায় আতঙ্ক ছড়ায়। জগদ্দল এলাকায় তৃণমূলের কয়েকটি পার্টি অফিস দখল করে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ। কাঁকিনাড়া, হালিশহরেও একই ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

অভিযোগ, শুক্রবার দুপুরে হালিশহরের ১০ নম্বর ওয়ার্ডের বাণীমন্দির এলাকায় একদল দুষ্কৃতী হানা দেয়। শুভঙ্কর ঘোষ নামে এক তৃণমূল কর্মীর অভিযোগ, ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বলতে তাঁদের ক্লাবে হামলা করা হয়। দুষ্কৃতীরা বোমাও ছুড়তে থাকে। ক্লাবের সামনে রাখা একটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। ভেঙে দেওয়া হয় সাতটি বাইক এবং একটি অটো। এলাকার সিসি ক্যামেরাও 

ভাঙা হয়। দু’টি বাড়ি এবং একটি দোকানেও ভাঙচুর হয়। বীজপুর থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। অভিযোগ পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করেও বোমা ছোড়া হয়।

পুলিশ অবশ্য তাদের গাড়িতে বোমা ছোড়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ডিসি (‌জোন ১) কে কান্নন বলেন, ‘‘হালিশহরে দু’জনকে এবং কাঁকিনাড়া, ভাটপাড়া এলাকায় গোলমাল পাকানোর অভিযোগে ৩০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’’

তৃণমূলের পার্টি অফিস দখল প্রসঙ্গে অর্জুন বলেন, ‘‘ওগুলো মোটেই তৃণমুলের পার্টি অফিস ছিল না। বিজেপির পার্টি অফিস তৃণমূল জোর করে দখল করেছিল। সেগুলো ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।’’ তবে কোন পথে সেই সব অফিসগুলি ফিরিয়ে আনা হচ্ছে তা নিয়ে কিছু বলতে চাননি অর্জুন। 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত