• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

উক্তি ঠিক? ম্যাথুর নার্কো চায় পুলিশ

Mathew Samuel
ম্যাথু স্যামুয়েল। —ফাইল চিত্র।

বিহারের এক প্রাক্তন সাংসদ-মন্ত্রীকে হুমকি দিয়ে তোলা চাওয়ার অভিযোগকে ঘিরে কলকাতা পুলিশ ইতিমধ্যে তাঁকে কয়েক দফায় জেরা করেছে। কিন্তু ম্যাথু স্যামুয়েল সত্যি কথা বলছেন কি না, তা জানতে এ বার তাঁকে নার্কো অ্যানালিসিস পরীক্ষায় বসাতে চান লালবাজারে কর্তারা। বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে এ কথা জানান রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল (এজি) কিশোর দত্ত। বিচারপতি ৯ নভেম্বর পুলিশকে কেস ডায়েরি পেশ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

ম্যাথুর আইনজীবী আদালতে জানান, তাঁর মক্কেল একটি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি নার্কো পরীক্ষার মুখোমুখি হতে প্রস্তুত। তবু তিনি এ ব্যাপারে ম্যাথুর বক্তব্য জেনে আদালতকে জানাবেন। নার্কো টেস্টে অভিযুক্তের সম্মতি নিয়ে সোডিয়াম পেন্টাথল নামে একটি ওষুধ ইঞ্জেকশনের মাধ্যমে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় তাঁর শরীরে। ওষুধের প্রভাবে তিনি অর্ধচেতন হয়ে গেলে বিভিন্ন প্রশ্ন করে তাঁর কাছ থেকে তথ্য জানার চেষ্টা হয়। ধরে নেওয়া হয়, আচ্ছন্ন অবস্থায় তিনি মিথ্যে বলতে পারবেন না। কেননা ওষুধের প্রভাবেই মিথ্যে বলার ক্ষমতা সাময়িক ভাবে লোপ পায়। তবে নার্কো টেস্টের তথ্য আদালতে গ্রাহ্য নয়।

এজি-র অভিযোগ, বিহারের ওই প্রাক্তন সাংসদ-মন্ত্রীর কাছে পাঁচ কোটি টাকা তোলা চাওয়ার পিছনে আছে একটি বড় চক্র। ওই চক্র সম্পর্কে এখনই আদালতকে বিস্তারিত ভাবে জানাতে চায় না পুলিশ। ম্যাথুর বিরুদ্ধে একাধিক ব্যক্তি পুলিশের কাছে তাঁদের বক্তব্য জানিয়েছেন। এজি এ দিন বিচারপতি দেবাংশু বসাকের আদালতে আরও জানান, ম্যাথুকে যে নার্কো পরীক্ষায় বসানো হতে পারে, সিবিআই-কে তা জানানো হয়েছে। এজি-র দাবি, ম্যাথু সিবিআইয়ের বন্ধু হয়ে উঠেছেন। তা বুঝেই সিবিআই-কে কলকাতা পুলিশ অনুরোধ করেছে, তোলাবাজির তদন্তে জেরার সময়ে ওই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার প্রতিনিধি ম্যাথুর পাশে থাকতে পারেন। তাতে কলকাতা পুলিশের কোনও অসুবিধা নেই।

ম্যাথুর বিরুদ্ধে ফেব্রুয়ারিতে তোলাবাজির অভিযোগ করা হয় মুচিপা়ড়া থানায়। সেই থেকে পুলিশ তাঁকে অকারণে হয়রান করছে বলে নারদ স্টিং অপারেশনের হোতা ম্যাথুর অভিযোগ। তাই তোলাবাজির অভিযোগের তদন্ত সিবিআই-কে দিয়ে করানোর আবেদন জানিয়ে গত সপ্তাহে বিচারপতি বসাকের আদালতে মামলা করেছেন তিনি।

এ দিন সেই মামলার শুনানিতে ম্যাথুর আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য জানান, তদন্তকারীর তলবে তাঁর মক্কেল ছ’বার সাড়া দিয়েছেন। তাঁকে ৪৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। অথচ পুলিশ বলছে, তিনি নাকি তদন্তে সহযোগিতা করছেন না! স্টিং অপারেশনের নথি সিবিআই-কে দিয়েছেন ম্যাথু। তা জেনেও পুলিশ সেই নথি পেতে চাপ সৃষ্টি করছে। তাঁর মক্কেল স্টিং অপারেশনে রাজ্যের ১৩-১৪ জন নেতা, মন্ত্রী, আইপিএস অফিসারের দুর্নীতি ফাঁস করেছেন বলেই এ-সব করা হচ্ছে।

বিচারপতি তখন এজি-র কাছে জানতে চান, ম্যাথুকে আর কত বার থানায় হাজির হতে হবে? এজি জানান, ম্যাথুর কাছে যে-সব তথ্য ও জিনিসপত্র চাওয়া হয়েছে, সেগুলো তিনি কবে দিতে পারছেন, তার উপরে নির্ভর করছে পুরোটাই। বিচারপতি বলেন, ধরা যাক, অভিযুক্তের কাছে তা নেই। তা হলে আর কত বার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে ডাকা হতে পারে? এজি জানান, অভিযুক্তকে এখন শুধু জিজ্ঞাসাবাদের জন্যই ডাকা হচ্ছে। তাঁকে গ্রেফতারের অধিকার থাকলেও পুলিশ এখনও তা করেনি। অভিযুক্তকে হয়রান করা হচ্ছে না।

বিচারপতি জানান, তিনি কোনও লিখিত নির্দেশ দিচ্ছেন না। মুচিপাড়া থানার পুলিশ ৯ নভেম্বর মামলার কেস ডায়েরি আদালতে পেশ করুক। নার্কো পরীক্ষা নিয়ে ম্যাথুর বক্তব্য কী, ওই দিন আদালতে তা জানাতে হবে তাঁর কৌঁসুলি বিকাশবাবুকে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন