সদ্য নির্বাচিত আট বিধায়কদের শপথেও ধ্বনি যুদ্ধের ছায়া পড়ল রাজ্য বিধানসভায়।

লোকসভার কথা মাথায় রেখেই রাজ্য বিধানসভায় শপথ অনুষ্ঠানের শুরুতে সতর্ক করে দিয়েছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তবুও বুধবার নতুন বিধায়কদের শপথে শোনা গেল ‘জয় শ্রীরাম’  এবং ‘জয় হিন্দ্’ ধ্বনি। তবে বিধানসভার নথি থেকে তা বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবারই লোকসভায় শপথের সময় বিজেপি সাংসদেরা ‘জয় শ্রীরাম’ ও তৃণমূলের সাংসদেরা ‘জয় হিন্দ’ ও ‘জয় বাংলা’ ধ্বনি দেন। সংসদে এই অভূতপূর্ব ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছে দেশ জুড়ে। এদিন বিধানসভায় শপথ শুরুর সময় স্পিকার জানিয়ে দিয়েছিলেন নির্দিষ্ট বিধির বাইরে কোনও সদস্য যেন কিছু না বলেন। কিন্তু তাতেও এই পরিস্থিতি এড়ানো যায়নি। মালদহের হবিবপুর থেকে নির্বাচিত বিজেপির বিধায়ক জোয়েল মুর্মু শপথবাক্য পাঠের পরে ‘জয় শ্রীরাম’ বলে ওঠেন। অপ্রস্তুত হয়েই ফের এ সব এড়াতে অনুরোধ করেন স্পিকার। তারপরেও উলুবেড়িয়া পূর্ব কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত তৃণমূলের ইদ্রিস আলি শপথবাক্যের শেষে বলে ওঠেন, ‘জয় হিন্দ্’। সঙ্গে সঙ্গে স্পিকার জানিয়ে দেন, এই অতিরিক্ত অংশ নথিতে থাকবে না।

পরে পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘বিধানসভার মর্যাদার কথা মাথায় রেখে দল নির্বিশেষে সকলেরই এই ধরনের কাজ থেকে দূরে থাকা উচিত।’’ এদিন সর্বদল বৈঠকেও এ ব্যাপারে সতর্ক থাকতে অনুরোধ করেন বিমানবাবু।