অমিত শাহকে সমন পাঠাল কলকাতার ব্যাঙ্কশাল আদালত। তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতিকে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর আদালতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিল অষ্টম মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট।

মঙ্গলবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হয়ে আইনজীবী সঞ্জয় বসু অমিত শাহর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন। তিনি বলেন, “ মুখ্য মেট্রোপলিটান ম্যাজিস্ট্রেট এই মামলা গ্রহণ করেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০০ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ” অভিষেক নিজেও এ দিন আদালতে গিয়েছিলেন। মামলায় স্বাক্ষী হিসেবে ছিলেন আরও দুই তৃণমূল নেতা সৌম্য বক্সী এবং স্বরূপ বিশ্বাস।

গত ১১ অগাস্ট বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ মেয়ো রোডের জনসভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার এবং তৃণমূলের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ দুর্নীতির অভিযোগ তোলেন। নারদ, সারদা, রোজভ্যালি-সহ নানা দুর্নীতির অভিযোগের কথা তুলে ধরে তৃণমূলের বিরুদ্ধে আঙুল তোলার পাশাপাশি, অমিত শাহ ‘ভাইপোর দুর্নীতি’ বলেও তোপ দাগেন। অন্য একটি প্রসঙ্গে অমিত শাহ দাবি করেন, কেন্দ্রীয় সরকার বাংলাকে যে ৩ লক্ষ ৫৯ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে, তা লুঠে নিয়েছে ‘সিন্ডিকেট’ এবং ‘ভাইপো’।

আরও পড়ুন: মুকুল রায়ের ছেলে শুভ্রাংশুকে দেখতে হাসপাতালে মমতা

আরও পড়ুন: মঞ্চে রবীন্দ্রনাথ! মাইকে ‘ম্যায় নাচুঙ্গি’, উদ্দাম নৃত্য হাওড়ার তৃণমূল নেত্রীর

তার পরেই ১৩ অগাস্ট অভিষেকের আইনজীবী অমিত শাহকে আইনি চিঠি পাঠিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার কথা বলেন। অমিত ক্ষমা না চাওয়ায়, তাঁর বিরুদ্ধে এ দিন মামলা দায়ের করেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক।