পাঁচ-পাঁচ বার ডেকে পাঠিয়ে তাঁকে জেরা করেছে কলকাতা পুলিশ। ফের তলব করলেও এ বার আর মুচিপাড়া থানায় হাজিরা দিলেন না নারদ স্টিং অপারেশনের হোতা ম্যাথু স্যামুয়েল।

ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে রাজ্যের শাসক দলের এক ডজনেরও বেশি প্রভাবশালী নেতানেত্রীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে দিয়েছে নারদ-কাণ্ড। তার পরে তোলা চেয়ে বিহারের এক সাংসদকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে ম্যাথুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে কলকাতা পুলিশ। মুচিপাড়া থানার সেই মামলায় এর আগে বার পাঁচেক ডেকে পাঠিয়ে তাঁকে জেরা করেছে তারা। সোমবার আবার তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়। সন্তোষ শঙ্করন ছদ্মনামে নারদ স্টিং অপারেশন চালিয়েছিলেন ম্যাথু। সেই নামে নেওয়া তাঁর সিমকার্ড এবং পরিচয়পত্র তারা দেখতে চায় জানিয়েছে পুলিশ।

গত সপ্তাহেই কলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছেন ম্যাথু। এ দিন কলকাতা পুলিশকে ই-মেল করে ম্যাথু জানান, ছদ্মনামে নেওয়া পুরনো মোবাইল এবং পরিচয়পত্র যে তাঁর কাছে নেই, তা তিনি এর আগেও বলেছেন পুলিশকে। ই-মেলে ম্যাথু লিখেছেন, ‘‘এর আগে কলকাতা পুলিশের ডাকে সাড়া দিয়ে আমি পাঁচ বারের বেশি দেখা করেছি। সব মিলিয়ে ৪৫ ঘণ্টার বেশি জেরা করা হয়েছে আমাকে। ফলে এটা প্রমাণিত যে, আমি তদন্তে সাহায্য করতে প্রস্তুত। কিন্তু এই বিষয়টি নিয়ে আমি কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছি। এখন হাইকোর্ট যা নির্দেশ দেবে, আমি সেই অনুযায়ী পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব।’’