সদ্য শেষ হওয়া পুরভোটে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে উত্তর ২৪ পরগনার সমস্ত পুরসভার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান বয়কট করল বামেরা। সম্প্রতি এই জেলার ২৩টি পুরসভায় ভোটের ফল প্রকাশের পরে কাউন্সিলর হিসেবে শপথ নেওয়া শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার সেই সিদ্ধান্ত মত দমদম ও ব্যারাকপুরের বিভিন্ন পুরসভায় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত ছিলেন বাম কাউন্সিলরেরা। পরবর্তীকালে স্থানীয় মহকুমাশাসকের কাছে তাঁরা শপথ নেবেন বলে জেলা বামফ্রন্টের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু কেন এমন সিদ্ধান্ত? মঙ্গলবার সিপিএমের জেলা সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) নেপালদেব ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘পুলিশ প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে বহিরাগতদের দিয়ে তৃণমূল মানুষের রায়কে অমান্য করে জোচ্চুরি করে জিতেছে। তাদের সঙ্গে শপথ গ্রহণে গিয়ে একই খাতায় নাম লেখালাম না। যেখানে-যেখানে আমরা জিতেছি, সেই সব ওয়ার্ডে পরবর্তীকালে আমরা শপথ নেব।’’ অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। এই জেলার টাকি বাদে বাকি ২২টি পুরসভাতেই তৃণমূল একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে পুরবোর্ড গঠন করতে চলেছে। তৃণমূলের জেলার কার্যকরী সভাপতি রথীন ঘোষ বলেন, ‘‘তা হলে তো নির্বাচনের দিনই প্রার্থিপদ প্রত্যাহার করা উচিত ছিল। শপথ না নিয়ে বয়কট করলে সাধারণ মানুষের সমস্যা ওঁরা মেটাবেন কী করে?’’

অন্য দিকে, কাউন্সিলর হিসেবে শপথ নিলেও, পুরপ্রধান নির্বাচন পর্ব বয়কট করলেন রানাঘাট পুরসভার দুই কংগ্রেস কাউন্সিলর। তাঁদের দাবি, ‘‘তৃণমূল বিভিন্ন সময়ে কংগ্রেসকে নানা ভাবে অপমান করেছে। তাই আমরা পুরপ্রধান নির্বাচনের ওই অনুষ্ঠান বয়কট করেছি।’’ নব নির্বাচিত পুরপ্রধান পার্থসারথি চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘আমরা ওই কাউন্সিলরকে অপমান করিনি। তাই ওঁরা কেন এল না বলতে পারব না।’’