শহর ও শহরতলি থেকে বাজেয়াপ্ত আগ্নেয়াস্ত্র, ধৃত ১৩
মঙ্গলবার গভীর রাতে হাওড়া থানার তদন্তকারীরা জানতে পারেন, ইস্ট-ওয়েস্ট বাইপাসে কয়েক জন জড়ো হয়েছে। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক।
Guns

বমাল: সোনারপুর থেকে বাজেয়াপ্ত হওয়া অস্ত্র। বুধবার। নিজস্ব চিত্র

ভোটের মু‌খে শহরের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি বাড়িয়েছে পুলিশ। আর সেই সূত্রেই মঙ্গলবার গভীর রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত হাওড়ার বিভিন্ন প্রান্তে তল্লাশি চালিয়ে বাজেয়াপ্ত করা হল বোমা, আগ্নেয়াস্ত্র ও একাধিক ধারালো অস্ত্র। গ্রেফতার হয়েছে ১২ জন দুষ্কৃতী। অন্য দিকে, দক্ষিণ শহরতলির সোনারপুর থেকেও ধরা হয়েছে এক অস্ত্র পাচারকারীকে।

হাওড়া সিটি পুলিশ সূত্রের খবর, বিভিন্ন থানা ও গোয়েন্দাবাহিনী মিলিয়ে এই ধরপাকড় চালায়। পুলিশ কমিশনার বিশাল গর্গ বলেন, ‘‘নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সর্বত্র কড়া নজরদারি চালানো হচ্ছে। সকালে-রাতে রাস্তায় নাকা তল্লাশির পাশাপাশি বিভিন্ন ‘সোর্স’কেও কাজে লাগানো হচ্ছে। যাতে এলাকায় কোনও অপরাধমূলক কাজকর্ম হলে সেই খবর পাওয়া যায়।’’ কয়েক দিন আগেই হাওড়া সেতুর অ্যাপ্রোচ রোডে নাকা তল্লাশির সময়ে একটি ট্যাক্সি থেকে ২০ লক্ষ টাকা উদ্ধার হয়েছিল। গোলাবাড়ি এলাকা থেকেও আগ্নেয়াস্ত্র-সহ ধরা পড়েছিল তিন দুষ্কৃতী।

পুলিশ সূত্রের খবর, মঙ্গলবার গভীর রাতে হাওড়া থানার তদন্তকারীরা জানতে পারেন, ইস্ট-ওয়েস্ট বাইপাসে কয়েক জন জড়ো হয়েছে। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক। এর পরেই সাদা পোশাকের পুলিশ বাইপাসে হানা দিয়ে হাতেনাতে গ্রেফতার করে প্রসেনজিৎ কুন্ডু ওরফে ভিকি, সিন্টু চক্রবর্তী, বিনোদ সাউ ও অয়ন কর্মকার নামে চার দুষ্কৃতীকে। সকলেই হাওড়ার বাসিন্দা। তবে দলের বাকিরা পালিয়ে যায় বলেই দাবি পুলিশের। ধৃতদের থেকে চপার, লোহার রড, ছুরি, ভোজালি বাজেয়াপ্ত হয়েছে। ওই রাতেই পৌনে দু’টো নাগাদ বালি থানার টহলদার গাড়ির কর্মীরা খবর পান, জি টি রোডে দুই যুবক ইতস্তত ঘোরাঘুরি করছে। খবর পেয়ে সেখানে পুলিশের গাড়ি যেতেই ছুটতে শুরু করে দুই যুবক। ধাওয়া করে কিছুটা দূরে গিয়ে পাকড়াও করলে তাদের হাতে থাকা ব্যাগ থেকে উদ্ধার হয় ধারালো অস্ত্র।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

বুধবার ভোরে হাওড়া সিটি পুলিশের গোয়েন্দারা লিলুয়ার মনসা কলোনিতে হানা দিয়ে জিতু সিংহ নামে এক যুবকের বাড়ি থেকে একটি সেভেন এমএম পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেন। গ্রেফতার করা হয়েছে ওই যুবককে। এ দিন গোপন সূত্রে খবর পেয়ে হাওড়া রেল মিউজিয়ামের সামনে আগে থেকেই হাজির ছিল গোয়েন্দাবাহিনী। পাঁচ যুবক সেখানে আসতেই তাদের ধরে ফেলেন তাঁরা। ধৃতদের থেকে মিলেছে তিনটি তাজা বোমা এবং গুলি ভর্তি ওয়ান শটার। ধৃতদের তিন জন মথুরাপুর, এক জন জয়নগর ও আর এক জন এন্টালির বাসিন্দা। পুলিশকর্তারা জানিয়েছেন, ধৃতদের বিরুদ্ধে পুরনো কী অভিযোগ রয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

অন্য দিকে, এ দিনই বিকেলে সোনারপুর থানার প্রসাদপুর মোড়ে বারুইপুর জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল অপারেশন্‌স গ্রুপ এবং সোনারপুর থানার পুলিশ একযোগে তল্লাশি চালিয়ে গ্রেফতার করেছে এক অস্ত্র পাচারকারীকে। ধৃতের নাম শেখ গোলাম রাকিব। বাজেয়াপ্ত হয়েছে দু’টি ওয়ান শটার, একটি গুলিভর্তি সেভেন এমএম পিস্তল এবং একটি মোবাইল। তবে অস্ত্র পাচার চক্রের মূল পান্ডাকে ধরা যায়নি।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত