বহরমপুরে আরএসপি-কে ‘না’ বলল আলিমুদ্দিন
ভরতপুরের প্রাক্তন বিধায়ক ঈদ মহম্মদকে বহরমপুর লোকসভা আসনে প্রার্থী করতে চান আরএসপি-র জেলা নেতৃত্ব।
RSP

টানাপড়েন বাধল বামফ্রন্টের অন্দরে!

কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা নিয়ে বামেদের টানাটানির পর্ব শেষ হয়ে গিয়েছে। এ বার কংগ্রেসের জেতা বহরমপুর আসনে প্রার্থী দেওয়া ঘিরে টানাপড়েন বাধল বামফ্রন্টের অন্দরে! বাম শরিক আরএসপি ওই আসনে প্রার্থী দিতে চায়। বামফ্রন্টের পুরনো সিদ্ধান্তই বহাল রেখে সিপিএম তাদের নিরস্ত করার চেষ্টায় নেমেছে।

ভরতপুরের প্রাক্তন বিধায়ক ঈদ মহম্মদকে বহরমপুর লোকসভা আসনে প্রার্থী করতে চান আরএসপি-র জেলা নেতৃত্ব। প্রার্থীর নামে দেওয়াল লিখনও শুরু করে দিয়েছেন তাঁরা। প্রথমে বহরমপুর কংগ্রেসের জন্য ছেড়ে দিতে রাজি থাকলেও পরিস্থিতির ফেরে তাঁদেরও মত বদল হয়েছে। কলকাতায় মঙ্গলবার আরএসপি-র রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলী জরুরি বৈঠকে বসে দলের জেলা নেতৃত্বের সিদ্ধান্তই অনুমোদন করে। কিন্তু সন্ধ্যায় আলিমুদ্দিনে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে সিপিএম নেতৃত্ব তাঁদের অনুরোধ করেছেন, বামফ্রন্টের পূর্বঘোষিত অবস্থান ভেঙে না বেরোতে। আরএসপি নেতৃত্বও সিপিএমকে বলেছেন, বামফ্রন্টের বাইরে গিয়ে তাঁরা কিছু করতে চান না। এ বার দলের সিদ্ধান্ত আবার প্রত্যাহার করে জেলা নেতৃত্বকে কী ভাবে বোঝাবেন, তা নিয়েই চিন্তায় পড়েছেন আরএসপি-র রাজ্য নেতৃত্ব!

আরএসপি-র যুক্তি, রাজ্যের ৪০ আসনেই যখন বামফ্রন্ট প্রার্থী দিয়েছে, তা হলে শুধু বহরমপুর ও মালদহ দক্ষিণ ছেড়ে রাখার যুক্তি কী? আলিমুদ্দিনের বৈঠকে এ দিন সিপিএমের বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র, রবীন দেবদের কাছে আরএসপি-র ক্ষিতি গোস্বামী, মনোজ ভট্টাচার্যেরা প্রশ্ন তোলেন, স্বয়ং কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধীই কেরলে বামেদের বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন। এর পরে আর কংগ্রেসের জন্য ‘সদিচ্ছার বার্তা’র অবকাশ থাকে কি? কেরলে অবশ্য আরএসপি নিজেই কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউডিএফের শরিক! সূর্যবাবুরা ব্যাখ্যা দিয়েছেন, কংগ্রেস নেতাদের কথা ভেবে তাঁরা কিছু করছেন না। রাজ্যে বিজেপি ও তৃণমূল বিরোধী ভোট এক জায়গায় আনতে বামেরা শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করেছিল— এই বার্তা কংগ্রেস ভোটারদের সামনে রেখে যেতে চান।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমানবাবু এ দিনই বলেন, ‘‘বহরমপুর ও মালদহ দক্ষিণে প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বামফ্রন্ট। বিজেপি ও তৃণমূলকে পরাস্ত করতে পারবেন যে প্রার্থী, তাঁকে সমর্থনের কথাই ওই দুই কেন্দ্রে বামপন্থীদের বলতে হবে। সোজা কথা সোজা করে বলতে হবে! এর মধ্যে কোনও জটিলতা নেই।’’ আরএসপি-র সাধারণ সম্পাদক ক্ষিতিবাবুর বক্তব্য, ‘‘বিমানবাবুরা আমাদের অনুরোধ করেছেন। বিমানবাবু, সূর্যবাবুকে নিয়ে বহরমপুরে কর্মিসভা করা হবে।’’ দলীয় স্তরে ফের বৈঠকও ডাকছে আরএসপি। 

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত