অনুমতি না নিয়েই থিম সং ‘প্রকাশ’, বাবুলকে শো-কজ নোটিস কমিশনের
গত রবিবার মুম্বইতে ওই থিম সংটি রেকর্ড করেন বাবুল সুপ্রিয়।
main

বাবুল সুপ্রিয়। —ফাইল চিত্র।

রাজ্য বিজেপিভোটপ্রচারের জন্য যে  ‘থিম সং’  তৈরি করেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়। তার জেরে এ বার তাঁকে শো-কজ নোটিস ধরাল নির্বাচন কমিশন। রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, ওই থিম সং অনুমতি ছাড়াই প্রকাশ করা হয়েছে। বাবুলের সন্তোষজনক জবাব না পেলে ওই থিম সং-এর উপর নিষেধাজ্ঞা জারির সম্ভাবনাও রয়েছে। যদিও বাবুলের দাবি, আনুষ্ঠানিক ভাবে ওই থিম সং প্রকাশ করা হয়নি। তিনি জানিয়েছেন, কমিশন জবাবদিহি চেয়ে পাঠালে তার জবাব দেবেন।

গত রবিবার মুম্বইতে ওই থিম সংটি রেকর্ড করেন বাবুল সুপ্রিয়। সংবাদমাধ্যমে তা নিয়ে খবরও প্রকাশিত হয়। মঙ্গলবার রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, ভোটের প্রচারের জন্য বিশেষ গান, জিঙ্গল বা ভিডিয়ো তৈরি করলে তা প্রকাশের জন্য অন্তত সাত দিন আগে নির্বাচন কমিশনের মিডিয়া সার্টিফিকেশন অ্যান্ড মনিটরিং কমিশনের কাছ থেকে অনুমতি নিতে হয় রাজনৈতিক দলগুলিকে। কিন্তু আসানসোলের বিজেপির সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বা তাঁর দলের তরফে সে রকম কোনও অনুমতি নেওয়া হয়নি বলেই কমিশনের দাবি। সে সব না করে অনুমতি ছাড়াই থিম সংয়ের একটি ভিডিয়ো প্রকাশ করে দেওয়া হয়।

বাবুলের ওই থিম সং নিয়ে এ দিন সকালেই আসানসোল দক্ষিণ থানায় একটি সংগঠনের তরফে অভিযোগ করা হয়। সেই অভিযোগে জানানো হয়, ওই থিম সংয়ে বাবুল তৃণমূল এবং দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অসম্মান করেছেন। তৃণমূলের তরফেও ওই থিম সং নিয়ে নির্বাচন কমিশনে আলাদা করে অভিযোগ জমা পড়ে। এর পর বিষয়টি জাতীয় নির্বাচন কমিশনের নজরে আনে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর। তার পর জাতীয় নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ পেয়েই বাবুলকে শো-কজ করে নির্বাচন কমিশন। ইমেলের মাধ্যমে শোকজ চিঠি পাঠানো হয় বাবুল সুপ্রিয়কে। অনুমতি ছাড়া কেন থিম সংটি প্রকাশ করলেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তার জবাব চাওয়া হয়েছে।

উপ মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সঞ্জয় বসু বলেন, “অনুমতি ছাড়াই গানটি প্রকাশ করা হয়েছে। সে কারণে বাবুল সুপ্রিয়কে শোকজ করা হয়েছে। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জবাব দিতে হবে তাঁকে। তার পর পরবর্তী পদক্ষেপ করব আমরা।” 

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

আরও পড়ুন: সমঝোতার জন্য ২৪ ঘণ্টা সময় কংগ্রেসকে, ৪টে বাদে সব আসনে প্রার্থী ঘোষণা বামেদের​

তবে কমিশনের অনুমতি ছাড়া থিম সং প্রকাশের দায় ঝেড়ে ফেলেছেন বাবুল সুপ্রিয়। তাঁর দাবি, “নির্বাচন কমিশন যদি গান নিয়ে কোনও শোকজ নোটিস পাঠায়, তা হলে নিশ্চয়ই তার জবাব আমি দেব। গানের  ভিডিয়ো কিন্তু আমরা বানাইনি। গানটার ভিডিয়ো তৈরি করে যা নিয়ম সেই অনুযায়ী বিজেপি থেকেই রিলিজ করা হবে।”

থিম সংয়ের কথা নিয়েও অভিযোগ জানানো হয়েছে তৃণমূলের তরফে। ফলে এই গানের গীতিকারকেও শোকজ করা হতে পারে বলে কমিশন সূত্রে খবর।

(বাংলার রাজনীতি, বাংলার শিক্ষা, বাংলার অর্থনীতি, বাংলার সংস্কৃতি, বাংলার স্বাস্থ্য, বাংলার আবহাওয়া -পশ্চিমবঙ্গের সব টাটকা খবর আমাদের রাজ্য বিভাগে।)

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত