শেষ মুহূর্তে ভোটের মেশিন বদলানোর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে, পাহারা দেওয়ার ডাক মমতার
সপ্তম দফার ভোটে ন’টি কেন্দ্রে প্রচার শেষের সময়সীমা শুক্রবার বিকেল পাঁচটার পরিবর্তে আজ, বৃহস্পতিবার রাত দশটায় এগিয়ে আনা হয়েছে। 
Mamata

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। —ফাইল চিত্র।

আজ শেষ দফার নির্বাচনের শেষ দিনের প্রচার মথুরাপুর থেকে শুরু করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তৃণমূল প্রার্থী চৌধুরী মোহন জাটুয়ার সমর্থনে প্রচার করেন তিনি। সেই জনসভাতে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা নিয়ে বিজেপিকে দুষে তিনি বলেন, ‘‘মূর্তি ভেঙে দিয়ে এখন বানাবে বলছে। কিন্তু মূর্তি ভেঙে দিয়ে বানালে হবে না, কারণ বাংলা ভিক্ষা চায় না।’’

এর পরই তিনি চলে এসেছেন ডায়মন্ডহারবারে তৃণমূলপ্রার্থী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচারে। এ ছাড়া আজ আরও দুটি নির্বাচনী কর্মসূচি আছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। দুপুর তিনটেয় জোকায় ৩-এ বাসস্ট্যান্ডে একটি পদযাত্রা করবেন তিনি। এর পর তিনি আরও যাদবপুরের তৃণমূলপ্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর সমর্থনে আরও একটি পদযাত্রা করবেন যাদবপুরের সুকান্ত সেতুতে।

আজকেই রাত দশটায় শেষ হচ্ছে নির্বাচনী প্রচার। সপ্তম দফা ভোটে ন’টি কেন্দ্রে প্রচার শেষের সময়সীমা শুক্রবার বিকেল পাঁচটার পরিবর্তে আজ, বৃহস্পতিবার রাত দশটায় এগিয়ে আনা হয়েছে। 

কী বললেন মমতা

• ইভিএম পাহারা দিতে হবে। কেন্দ্রীয় বাহিনী মারতে এলে ভয় পাবেন না। মা বোনেরা সামনে দাঁড়িয়ে এগিয়ে যাবেন। একটা ভোটও যেন না পায়। কোথাও ঢুকতে দেবেন না। 

• বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার বদলা আমরা নেব। বাংলার সংস্কৃতিকে অপমান করার বদলা আমরা নেব। গণতান্ত্রিক ভাবে ওদের বিদায় জানাবো। দাঙ্গা বাধানোর ষড়যন্ত্র করছে আরএসএস-বিজেপি। মা- বোনেদের সতর্ক থাকতে হবে।

• গণতান্ত্রিক ভাবে নরেন্দ্র মোদীকে বিদায় দিতে হবে দেশ থেকে। সঙ্গে জুটেছে দালাল জেটলি। অর্ধেক সময় দেশে থাকে না। 

• ছেলে মেয়েরা এক সঙ্গে ঘুরলে ধরে মারছে। আমি লিবেরাল। ছেলেমেয়েরা প্রেম করলে করুক। কেউ কিচ্ছু করতে পারবে না। অভিষেক প্রেম করতো দিল্লির একটি পঞ্জাবি মেয়েকে। আমরা বিয়ে দিয়ে দিয়েছি। তার পিছনেও পড়েছে।

• পাঁচ বছর ধরে রামমন্দিরের ধুয়ো তুলেছে। বানাতে পারেনি। আমরা দক্ষিণেশ্বরে স্কাইওয়াক করেছি। ফুরফুরা শরিফের পরিকাঠামো উন্নত করে দিয়েছি।

• রোজ পেট্রল, ডিজেল, গ্যাসের দাম বাড়াচ্ছে অচ্ছে দিনের নামে। গো রক্ষার নামে সংখ্যালঘুদের হত্যা করেছে।একটা ভোটও দেবেন না।

• ৭০ লক্ষ মেয়েদের জন্য কন্যাশ্রী চালু করেছি। ২ কোটিরও বেশি সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীকে স্কলারশিপ দিয়েছি।

আরও পড়ুন: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর রাজনৈতিক যাত্রা সম্বন্ধে কতটা জানেন?

• ডায়মন্ডহারবারে ইলিশ গবেষণা কেন্দ্র তৈরি করেছি আমরা। ডায়মন্ডহারবার পুরসভায় জলের প্রকল্পের জন্য ৩৮ কোটি টাকা দিয়েছি আমরা।

• আমাকে ওরা চেনে না। ওরা ঘুঘু দেখেছে, ফাঁদ দেখেনি। আমি শেষ মুহূর্তে পরিকল্পনা বদলে মথুরাপুরের মিটিং এগিয়ে এনেছি। আমাকে আটকানো যাবে না। সব গর্দভের দল। এত সাহস ওদের। আমার মিটিং আটকাতে পারেনি। আমি কালকের মিটিং আজ করে নিয়েছি। আমার একটা অনুষ্ঠানও নষ্ট করতে পারেনি।

• তৃতীয় দফার ভোটের পরই ওদের পতন নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। ভয় পেয়ে এখন বকরবকর করছে।কুকুরের জলাতঙ্ক রোগ হলে এই রকম করে।

• রাত জেগে পাহারা দিতে হবে। কোনও ষড়যন্ত্রের আঁচ পেলেই হাতের সামনে যা আছে তা নিয়ে ছুটে যেতে হবে। ছবি তুলে আমার কাছে পাঠাবেন।

• মেশিন বদলানোর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। মা- বোনেরা পাহারা দেবেন।

• বাংলাকে কাঙাল বলার ঔদ্ধত্য দেখিয়েছে ওরা। এই ঔদ্ধত্য ভেঙে দেব।

• তৃণমূল বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙেছে, প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত