এক দিনে দুই কেন্দ্রে তিন সভা মুখ্যমন্ত্রীর
মুখ্যমন্ত্রীর সভার দিন কালনার ধাত্রীগ্রাম স্কুল মাঠে সভা করার কথা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। ইতিমধ্যেই দলের নেতা-কর্মীরা  সেই মতো প্রচার করছেন।
meeting ground

সভাস্থল পরিদর্শন। নিজস্ব চিত্র।

এক দিনে জেলায় তিন প্রান্তে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে সভা করার কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ওই দিনই বর্ধমান শহরের উৎসব ময়দানে  বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ এবং কালনার ধাত্রীগ্রামে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সভা করবেন বলে বিজেপির দাবি। সব ঠিক থাকলে আগামী সোমবার, ২২ এপ্রিল ‘হেভিওয়েট’ নেতাদের ‘বাক-যুদ্ধ’ দেখবেন ভোটারেরা।  

বুধবার জেলা পুলিশ ভাস্কর মুখোপাধ্যায় পূর্বস্থলীর জামালপুর, রায়নার সেহরাবাজার ও বর্ধমান শহর লাগোয়া বিদ্যাসাগর উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনের মাঠ ঘুরে দেখেন। জানা গিয়েছে, ওই দিন এই তিন জায়গাতেই সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রথম দুটি জায়গা বর্ধমান পূর্ব ও বর্ধমান শহর লাগোয়া জায়গাটি বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। এ দিন মাঠে মঞ্চ কোথায় হবে, গাড়ি কোথায় থাকবে তা নিয়ে এসপি-র সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা করেন জেলা তৃণমূলের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক উত্তম সেনগুপ্ত। তিনি বলেন, “২২ এপ্রিল, সোমবার জেলায় পরপর তিনটে সভা করবেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রাথমিক প্রস্তুতির জন্যে মাঠগুলির পরিস্থিতি দেখে এলাম।’’

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, আসানসোলে তিনটে সভা করার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। ওই দিন দুর্গাপুরে একটি সভা করতে চান তিনি। তবে সভার দিনক্ষণ এখনও নিশ্চিত ভাবে জানাতে পারেননি দল বা প্রশাসন। তৃণমূলের একটি সূত্রের খবর, ২৫ বা ২৬ এপ্রিল ওই সভা হতে পারে। এর আগে শনিবার দুপুরে কাটোয়ার গোবিন্দ ফিল্ডে যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভা করার কথা। এ দিন সেই জায়গাও পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার। জেলা তৃণমূল সূত্রে জানা যায়, পর্যবেক্ষক অরূপ বিশ্বাস ২৩ এপ্রিল থেকে ২৭ তারিখ পর্যন্ত জেলাতেই থাকবেন। দলীয় কর্মীদের দাবি, ওই ক’দিনে ভাতার থেকে পূর্বস্থলী, মেমারি থেকে জামালপুর—মোট ১০৬ কিলোমিটার রাস্তায় প্রচার করবেন তিনি।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

মুখ্যমন্ত্রীর সভার দিন কালনার ধাত্রীগ্রাম স্কুল মাঠে সভা করার কথা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের। ইতিমধ্যেই দলের নেতা-কর্মীরা  সেই মতো প্রচার করছেন। যোগীর ছবি দিয়ে ‘আমি আসছি ২২ এপ্রিল’ বলে হোয়াটসঅ্যাপ স্টিকারেও প্রচার চলছে। বর্ধমান সদরের বিজেপির সাংগঠনিক সভাপতি সন্দীপ নন্দীর দাবি, “২২ এপ্রিল বিকেলে বর্ধমান শহরে অমিত শাহ সভা করবেন। প্রধানমন্ত্রীকেও আনার ব্যাপারে অনেকটা কথা এগিয়েছে।’’ যদিও প্রশাসনের তরফে কোনও নিশ্চয়তা মেলেনি। সিপিএমের দাবি, ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারও ২৩ এপ্রিল মেমারি ও বর্ধমান শহরে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে সভা করবেন।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত