সব এলাকায় ‘লিড’ চাই, নির্দেশ বৈঠকে
আসানসোলের রবীন্দ্র ভবনে সোমবার সকালে এই বৈঠকে বসেন তৃণমূল নেতারা। সভাপতিত্ব করেন দলের জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন।
Munmun Sen

আসানসোলের রবীন্দ্র ভবনে তৃণমূলের বৈঠকে প্রার্থী মুনমুন সেন। সোমবার। ছবি: পাপন চৌধুরী

বুথ স্তর থেকে জেলা কমিটি, সব স্তরের নেতা-কর্মী ও দলের বিধায়কদের নিয়ে সোমবার বৈঠক করলেন আসানসোলের তৃণমূল প্রার্থী মুনমুন সেন। দল সূত্রে জানা যায়, গত লোকসভা ভোটের ভুল শুধরে এ বার জেতার জন্য রণকৌশল তৈরিই ছিল বৈঠকের আলোচ্য বিষয়। ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ দূরে সরিয়ে রেখে দলের স্বার্থে এক হয়ে কাজ করার ডাক দেন মুনমুন। দোল উৎসব উপলক্ষে মাঝে দু’দিন বাদ দিয়ে টানা কয়েক দিনের কর্মসূচিও ঠিক করেছেন তৃণমূল প্রার্থী।

আসানসোলের রবীন্দ্র ভবনে সোমবার সকালে এই বৈঠকে বসেন তৃণমূল নেতারা। সভাপতিত্ব করেন দলের জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন। গত লোকসভা ভোটে আসানসোল কেন্দ্রের অন্তর্গত সাতটি বিধানসভা এলাকার মধ্যে জামুড়িয়া ও পাণ্ডবেশ্বর ছাড়া সব ক’টিতেই বিজেপি-র চেয়ে কম ভোট পেয়েছিল তৃণমূল। এর মধ্যে আসানসোল উত্তর ও দক্ষিণ এবং কুলটিতে বড় ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েন দলের প্রার্থী। সে কথা মনে করিয়ে জেলা সভাপতি শিবদাসন এ দিন নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দেন, ‘‘এ বার প্রত্যেক বিধানসভা এলাকা থেকে জিততেই হবে।’’

তৃণমূল সূত্রে জানা যায়, এ দিন বৈঠকের শুরুতেই কুলটির বিধায়ক উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় তাঁর এলাকায় দলের বর্তমান পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেন। গত বার দলের প্রার্থী দোলা সেন কুলটি বিধানসভা এলাকা থেকে চল্লিশ হাজারেরও বেশি ভোটে পিছিয়ে পড়েন। এ দিন উজ্জ্বলবাবু দাবি করেন, এ বার আর সেই পরিস্থিতি হবে না। এর পরেই আসানসোলের মেয়র তথা পাণ্ডবেশ্বরের বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি জানান, গত বিধানসভা ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রী কুলটিতে জল এনে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। এ বার তা পূরণ হতে চলেছে। কুলটিতে তাই এ বার তৃণমূল প্রার্থীর ৫০ হাজার ভোটে ‘লিড’ পাওয়া উচিত বলে দাবি করেন তিনি।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

মুনমুন নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘‘আমরা কারও সঙ্গে ঝগড়া করব না। সবাই মিলে এক সঙ্গে কাজ করে বুঝিয়ে দেব, আমরা কী করতে পারি।’’ তিনি জানান, দোলের দু’দিন বাদ দিয়ে অন্য দিনগুলিতে প্রত্যেক বিধানসভা এলাকায় আলাদা করে দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে সাংগঠনিক বৈঠক করবেন। এ দিন বিকেলেই তিনি সালানপুরে কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন। আজ, মঙ্গলবার সকালে জামুড়িয়ার টাউন হলে ও বিকেলে পাণ্ডবেশ্বরে বৈঠক করবেন বলে জানান তিনি। ২০ মার্চ সকালে জামুড়িয়া ২ ব্লকে সভা করার কথা। ২৩ মার্চ কুলটির বিধায়ক, কাউন্সিলর ও কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা তাঁর। ২৪ মার্চ সকালে তাঁর আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার গ্রামীণ এলাকায় ও বিকেলে বার্নপুরে কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করার কর্মসূচি ঠিক হয়েছে বলে তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত