প্রচারে নাকি ছাড় হেলমেটে! বলছেন শতাব্দী
বিরোধী শিবিরের একাংশের কটাক্ষ— এক দিকে পথ নিরাপত্তায় ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’-এর প্রচার করছে রাজ্যে ক্ষমতাসীন তৃণমূল সরকার।
Shatabdi

মাড়গ্রামে মোটরবাইক মিছিল বীরভূম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়ের। মঙ্গলবার। ছবি: সব্যসাচী ইসলাম।

ভোট-প্রচারে হুডখোলা জিপে বেরিয়েছেন প্রার্থী। তাঁর সঙ্গে এলাকা ঘুরছে শতাধিক মোটরবাইক। অভিযোগ, সওয়ারিদের প্রায় সবাই ছিলেন হেলমেট-বিহীন।

মঙ্গলবার মাড়গ্রামে বীরভূম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়ের ওই প্রচার মিছিল ঘিরে ছড়িয়েছে বিতর্ক।

বিরোধী শিবিরের একাংশের কটাক্ষ— এক দিকে পথ নিরাপত্তায় ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’-এর প্রচার করছে রাজ্যে ক্ষমতাসীন তৃণমূল সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেলায় প্রশাসনিক বৈঠকে এসে বারবার দুর্ঘটনা রুখতে পুলিশকে আরও তৎপর হওয়ার নির্দেশ দিয়ে গিয়েছেন। সেখানে তাঁর দলেরই বিদায়ী সাংসদ তথা লোকসভা ভোটের প্রার্থী শতাব্দীর প্রচার-মিছিলে হেলমেট-হীন মোটরবাইক আরোহীর ভিড় বেমানান।

তবে এতে তত গুরুত্ব দিতে নারাজ প্রার্থী। শতাব্দীর কথায়, ‘‘এখন ভোটের সময়। এই সময় কর্মীদের উচ্ছ্বাস থাকে। হেলমেট মাথায় ঘুরলে তাঁদের তো এলাকার মানুষ চিনতে পারবেন না। তাঁরা যে আমার সঙ্গে ঘুরছেন, তা-ও বুঝতে পারবেন না। এই সময় তো ছাড় দিতেই হয়।’’

বীরভূম কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থীর ওই প্রচার মিছিলকে নিশানা করেছে বিরোধী শিবির। বীরভূম জেলা সিপিএমের পক্ষে দলের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সঞ্জীব বর্মন রামপুরহাট মহকুমাশাসকের মাধ্যমে কমিশনে নির্বাচনবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ দায়ের করেছেন। সঞ্জীববাবু বলেন, ‘‘নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু হওয়ার পরে এমন মোটরবাইক মিছিল করা যায় না। ওই মিছিল করে মাড়গ্রামে সন্ত্রাসের বাতাবরণ তৈরি করা হয়েছে। যা অবাধ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের পরিপন্থী।’’ তাঁর মন্তব্য, ‘‘পথ দুর্ঘটনা রুখতে যে প্রকল্পে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি লাগিয়ে রাজ্য সরকার কোটি কোটি টাকা খরচ করছে, তাঁর দলের এক প্রার্থী তখন হেলমেট-হীন মোটরবাইক সওয়ারির পক্ষে কথা বলছেন।’’

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

এ নিয়ে রামপুরহাটের মহকুমাশাসক নাভেদ আখতার বলেন, ‘‘এমন অভিযোগ পেয়েছি। ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। রামপুরহাট ২ ব্লকের বিডিওকে বিষয়টি দেখতে বলা হয়েছে।’’

জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় এ নিয়ে বলেছেন, ‘‘পুলিশ আমাদের মোটরবাইক মিছিল করতে দেয় না। আমরা শতাব্দী রায়ের এ দিনের মিছিলের ভিডিয়ো জোগাড় করছি। আমরাও নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করব।’’

এ দিন সকালে মাড়গ্রামে হুডখোলা জিপ নিয়ে বের হন শতাব্দী। মিছিল শুরু হয় ফকিরবাগান এলাকা থেকে। মিছিলে ছিল শতাধিক মোটরবাইক। অভিযোগ, দু’একটি মোটরবাইকে তৃণমুলের পতাকাও লাগানো ছিল।

এ দিন বিকেলে মাড়গ্রামে প্রচার চালান বীরভূম কেন্দ্রের বামফ্রন্ট প্রার্থী রেজাউল করিম। হেঁটে বিভিন্ন এলাকায় ঘোরেন তিনি। ছোট ছোট কয়েকটি সভাও করেন। মাড়গ্রামে হাসপাতাল মোড় থেকে প্রচার শুরু হয় তাঁর। যান দুনিগ্রাম এবং হাঁসন ২ অঞ্চলেও।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত