আজ রবিবার একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে সরকার ও দলের পথই নির্দিষ্ট করে দিতে চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার ধর্মতলার সভাস্থল দেখতে এসে তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি নিজেই। এই সমাবেশ সম্পর্কে মমতা এ দিন বলেন, ‘‘সরকারের সামনে অনেক কাজ আছে। আমরা মানুষের কাজ করছি। অনেক পথ চলা বাকি।’’ এখনই ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে তিনি ভাবছেন না বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ বারের লোকসভা ভোটের পর থেকেই ইভিএম-এর বদলে ব্যালটে ভোটের দাবি তুলেছিল তৃণমূল। একুশের জনসভায় দলের স্লোগান হিসেবে সেই তা-ই সামনে রেখেছেন তিনি। মঞ্চের পিছনে সেই স্লোগানই লেখা রয়েছে। নির্বাচনী প্রস্তুতির বাইরে বৃহত্তর রাজনৈতিক কর্মসূচি হিসেবেই এই সভা ও স্লোগান ব্যবহার করতে চাইছেন তৃণমূলনেত্রী। তা বুঝিয়েই তিনি এ দিন বলেন, ‘‘ইংল্যান্ড, আমেরিকা, জার্মানি, ফ্রান্সের মতো দেশ ইভিএম থেকে ব্যালটে ফিরে গিয়েছে।’’ নির্বাচনী সংস্কারের দাবি তুলে মমতা বলেন, ‘‘নির্বাচনে কালো টাকা ঠেকাতে ১৯৯৫ থেকে এই দাবি করছি। ভোটে কেন কালো টাকা ঢুকবে?’’ এই প্রসঙ্গে একুশে জুলাইয়ের গুরুত্ব ব্যাখ্যা করে তৃণমূলনেত্রী বলেন, ‘‘সাধারণ মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারের দাবিতে এই ১৯৯৩ সালে এই কর্মসূচি নিয়েছিলাম। সেই আন্দোলন সফল হয়েছে। আমরা প্রত্যেকবছর এই কর্মসূচি পালন করি।’’

লোকসভা ভোটে ধাক্কা খাওয়ার পর ২০২১-এর বিধানসভা ভোটই এখন রাজনৈতিক আলোচনার কেন্দ্রে। শাসক দলের গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি এই একুশে জুলাইয়ের সভা থেকে সে সম্পর্কে দিকনির্দেশ করা হতে পারে বলেও চর্চা চলছে। তবে এ দিন ধর্মতলায় সভাস্থলের প্রস্তুতি দেখতে এসে সেই চর্চা নাকচ করে দেন মমতা। তিনি বলেন, ‘‘২০২১-এর ভোট এখনও দু’বছর বাকি আছে। ভোটের প্রস্তুতি তিন মাস আগে নেওয়া যায়।’’