কে কী খাবেন, তা অন্য কেউ ঠিক করে দিতে পারে না। ফের এই বিষয়ে সরব হলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানিয়ে দিলেন, কেউ কেউ অন্যদের খাদ্যাভ্যাস নিয়ে অসহিষ্ণু হয়ে পড়ছেন। এটা অত্যন্ত বিপজ্জনক একটা প্রবণতা। পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মমতা বুধবার তুলে আনলেন কাজলের প্রসঙ্গও।

এ দিন কাজলের নাম না করে মমতা বলেন, ‘‘আমি ওই অভিনেত্রীর নাম করতে চাই না। তিনি শাহরুখ খানের সঙ্গে বহু ছবিতে কাজ করেছেন। সম্প্রতি তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করেন। যার পর থেকে তাঁকে ট্রোলড এবং হেনস্থা হতে হয়। তাঁকে ব্যাখ্যা দিতে বাধ্য হতে হয় যে, ওটা গরুর মাংস নয়, মোষের মাংস ছিল। এটা অত্যন্ত উদ্বেগজনক এক পরিস্থিতি।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘অন্যেরা কী খাবে সেটাও ওরা নির্দেশ দেওয়ার চেষ্টা করছে।’’

আরও পড়ুন
চমক দিতে গিয়ে বেইজ্জত! দিল্লির জন্য জবাব খুঁজছেন দিলীপরা

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমতো ট্রোলড এবং ভর্ত্সনার শিকার হতে হয় কাজলকে। একটি রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেখানকার একটি বিশেষ পদের ছবি দেখিয়ে তিনি বলেছিলেন এটি গরুর মাংস দিয়ে তৈরি। এর পরই ট্রোলড হতে হয় তাঁকে। পরে তিনি জানান, ওটি গরু নয়, মোষের মাংস দিয়ে তৈরি করা হয়েছিল। শেষে টুইটারে কাজল জানান, তিনি কারও ধর্মীয় ভাববেগে আঘাত দিতে চাননি। পরে সেই ভিডিওটি ইন্সটাগ্রাম এবং ফেসবুক থেকে সরিয়েও নেন তিনি।

আরও পড়ুন
মনদীপের হ্যাটট্রিকে জয়ে ফিরল ভারত

দেশে বিভাজনের রাজনীতি নিয়ে এর আগেও বিজেপিকে তুলোধনা করেছেন মমতা। গত বছরেই কলকাতায় একুশে জুলাই মঞ্চ থেকে তিনি নাম না করে বিজেপির উদ্দেশে বলেছিলেন, ‘‘ছাগল খেলে দোষ নেই, গরু খেলেই দোষ। কে কী পরবে, কী খাবে তা তোমরা ঠিক করে দেওয়ার কে?’’