ফের মাওবাদী পোস্টার পড়ল শহরতলিতে। শুক্রবার সকালে সোদপুর স্টেশনে মাওবাদী পোস্টার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। রেলপুলিশের নজরদারি সত্ত্বেওকী ভাবে স্টেশন জুড়ে পোস্টার পড়ল, তা খতিয়ে দেখছেন রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দারা।

লেখক-বুদ্ধিজীবী এবং গণ আন্দোলনের কর্মীদের উপর আক্রমণের প্রতিবাদ করে পোস্টারে বলা হয়েছে, এ সব কিছুতেই মেনে নেওয়া হবে না। সাম্প্রদায়িকতা, মৌলবাদ, ফ্যাসিবাদ-সহ রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধেও প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বেশ কিছু দিন আগে জঙ্গলমহলে মাওবাদী পোস্টার ঘিরেও চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। তখনও সরকারি নীতির সমালোচনা করা হয়।

আরও পড়ুন: রজত মৃত্যু রহস্যে নয়া মোড়, খুনের মামলা দায়ের, সন্দেহের তালিকায় স্ত্রীও​

আরও পড়ুন: ভগৎ সিংহ সন্ত্রাসবাদী! অধ্যাপকের মন্তব্য ঘিরে উত্তাল জম্মু বিশ্ববিদ্যালয়

কিছু দিন আগেই পশ্চিম মেদিনীপুরের গোয়ালতোড়ে মাওবাদী কার্যকলাপের অভিযোগে সব্যসাচী গোস্বামী, সঞ্জীব মজুমদার, টিপু সুলতান ও অর্কদীপ গোস্বামীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার রেশ কাটতে না কাটতেই মেদিনীপুর শহর লাগোয়া মুড়াকাটাএলাকায় লাল কালিতে লেখা মাওবাদীদের ১১টি পোস্টার উদ্ধার হয়। তাতে মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়েছিল। দীর্ঘ দিন নিষ্ক্রিয় থাকার পর ফের মাওবাদী সক্রিয়তা যে বাড়ছে তার ইঙ্গিত গত কয়েক মাস ধরেই পাচ্ছিলেন গোয়েন্দারা। এবার সোদপুরে মাওবাদী পোস্টার পড়ার ঘটনায় সেই আশঙ্কা আরও স্পষ্ট হতে শুরু করেছে।

সম্প্রতি সিপিআই (মাওবাদী)-র সুপ্রিমো মুপাল্লা লক্ষ্মণ রাও ওরফে গণপতি দলের সাধারণ সম্পাদক পদে ইস্তফা দিয়েছেন। তাঁর জায়গায় এসেছেন বাসবরাজু ওরফে নামবাল্লা কেশব রাও। নতুন রণনীতিও নিচ্ছেন বাসবরাজু। তারই প্রভাব পড়ছে বিভিন্ন রাজ্যে।