• সুনন্দ ঘোষ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কলকাতার অদূরে রক্ষা দুই বিমানের

Etihad Airways

Advertisement

এক সপ্তাহও হয়নি। মুম্বইয়ের আকাশে কাছাকাছি চলে এসেছিল দু’টি বিমান। কোনও ক্রমে সংঘর্ষ এড়ায় তারা। এ বার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি কলকাতার আকাশে। ঠিক মহানগরের উপরে নয়, দু’টি আন্তর্জাতিক বিমান কাছাকাছি চলে এসেছিল বঙ্গোপসাগরের উপরে। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার রাতে।

মুম্বইয়ের ঘটনায় দুই বিমানের ট্রাফিক কলিশন অ্যাভয়ডিং সিস্টেম (টিকাস) সতর্ক করে দিয়েছিল এয়ার ইন্ডিয়া এবং বিস্তারা বিমানের পাইলটদের। বঙ্গোপসাগরের উপরে দুর্ঘটনা এড়ানো গিয়েছে কলকাতার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল (এটিসি)-এর অফিসারদের সতর্কতায়। প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে, ইয়াঙ্গন এটিসি-র ভুলে কাছাকাছি চলে এসেছিল দু’টি বিমান। বিমান পরিবহণের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল অ্যাভিয়েশন (ডিজিসিএ) এবং ইয়াঙ্গন এটিসি-কে তা জানানো হয়েছে।

কলকাতা বিমানবন্দর সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতে যাত্রী নিয়ে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের বিমান ব্যাঙ্কক থেকে আবুধাবি যাচ্ছিল। এয়ার এশিয়ার বিমান কুয়ালা লামপুর থেকে যাচ্ছিল বিশাখাপত্তনম।
দু’টি বিমানই কলকাতার আকাশে ঢোকার আগে ইয়াঙ্গন এটিসি-র আওতায় ছিল। এয়ার এশিয়ার বিমান ইয়াঙ্গন থেকেই ৩৪ হাজার ফুট উঁচুতে ছিল। কলকাতার আকাশে ঢুকে ওই উচ্চতাতেই কিছুটা উড়ে গিয়ে তার বিশাখাপত্তনমে নামার কথা ছিল।

আকাশে বেশ কিছু কাল্পনিক পয়েন্ট রয়েছে, যা শুধু বিমান পরিবহণের সঙ্গে যুক্ত এটিসি অফিসার ও পাইলটেরাই জানেন। নির্দিষ্ট ওই পয়েন্টে গিয়ে এটিসি-র সঙ্গে যোগাযোগ করেন পাইলট। বঙ্গোপসাগরের উপরে এমনই এক পয়েন্টের নাম মা-বুর। সে-দিন ৩৪ হাজার ফুটে ওই মা-বুর পয়েন্টে গিয়ে কলকাতার এটিসি-র সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা ছিল এয়ার এশিয়ার বিমানটির। প্রায় একই সময়ে ৩২ হাজার ফুট উপরে ইতিহাদ বিমানেরও মা-বুর পয়েন্টে গিয়ে যোগাযোগ করার কথা ছিল।

অভিযোগ, ইয়াঙ্গনের আকাশে ইতিহাদ ওই ৩২ হাজার ফুট উপরেই ছিল। কিন্তু ইয়াঙ্গনের আকাশ ছাড়ার একটু আগেই সে উপরে উঠতে শুরু করে। মা-বুর পয়েন্টে পৌঁছনোর মুখে ইতিহাদের পাইলট কলকাতার এটিসি-র সঙ্গে যোগাযোগ করে জানান, তিনি ইতিমধ্যেই ৩৩ হাজার ৫০০ ফুট উপরে উঠে এসেছেন। যাচ্ছেন ৩৪ হাজার ফুট উপরে। প্রমাদ গোনেন এটিসি অফিসারেরা। তাঁরা হিসেব করে দেখেন, দু’টি বিমান একসঙ্গে ৩৪ হাজার ফুট উপরে মা-বুর পয়েন্টে পৌঁছচ্ছে প্রায় একই সময়ে (রাত ৮টা নাগাদ)। সে-ক্ষেত্রে দুর্ঘটনা অবশ্যম্ভাবী। সঙ্গে সঙ্গে ইতিহাদের পাইলটকে ৩২ হাজার ফুটে নেমে যেতে বলা হয়। তিনি নেমে যান ৩২ হাজারে।

মুম্বইয়ের ঘটনায় অভিযোগের আঙুল উঠেছে দুই বিমানের দুই প্রধান পাইলটের দিকে। ঘটনার সময়ে তাঁদের কেউই ককপিটে ছিলেন না। দু’টি বিমানের নিয়ন্ত্রণ ছিল দুই মহিলা কো-পাইলটের হাতে। আর কলকাতার ঘটনায় অভিযোগের আঙুল প্রতিবশী দেশের এটিসি-র দিকে। সে-ক্ষেত্রে শেষরক্ষা হয়েছে এ শহরের এটিসি অফিসারদের জন্য।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন