সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এক সময় সিবিআইয়ের অধিকর্তার দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। সারদা, রোজ ভ্যালি, আইকোর-সহ বিভিন্ন বেআইনি অর্থ লগ্নি সংস্থার আর্থিক নয়ছয় নিয়ে তদন্তের তদারক করতে কলকাতায় এলেন সিবিআইয়ের সেই অতিরিক্ত অধিকর্তা নাগেশ্বর রাও। সেই সঙ্গে তিনি নারদ-কাণ্ডের তদন্তের অগ্রগতি সম্পর্কেও খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে সিবিআই সূত্রের খবর।

বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতায় নেমে নাগেশ্বর সল্টলেকে সিজিও কমপ্লেক্সে সিবিআইয়ের দফতরে যান। সেখান থেকেই সব লগ্নি সংস্থার আর্থিক দুর্নীতির তদন্ত পরিচালিত হচ্ছে। দুপুরে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি থোট্টাথিল ভাস্করন নায়ার রাধাকৃষ্ণনের সঙ্গে সৌজন্য-সাক্ষাৎ করেন নাগেশ্বর।

হাইকোর্টের নির্দেশেই কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার এখন গৃহবন্দি। উচ্চ আদালতের নির্দেশ, রাজীব সিবিআইয়ের কাছে হাজিরা দিলেও তাঁকে এখন গ্রেফতার করা যাবে না। সিবিআইয়ের ডিরেক্টর-পদ থেকে অলোক বর্মার অপসারণের পরে শীর্ষ আদালতের নির্দেশে নাগেশ্বর ওই কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার অন্তর্বর্তী অধিকর্তার দায়িত্ব সামলেছিলেন। এবং সেই সময়েই রাজীবের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই। বর্মার অপসারণ এবং তাঁর সঙ্গে সিবিআইয়ের অন্যতম শীর্ষ কর্তা রাকেশ আস্থানার তীব্র বিরোধের বিষয়টি সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়ায়। সারদা ও নারদ তদন্ত নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য দ্বৈরথে নাগেশ্বরের স্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে, এমন একটি সংস্থার বিরুদ্ধে তদন্তে নামে কলকাতা পুলিশ। সিবিআইয়ের খবর, এ দিন কলকাতায় কর্মরত সিবিআইয়ের যুগ্ম অধিকর্তা পঙ্কজ শ্রীবাস্তব এবং সারদা, রোজ ভ্যালি ও নারদ নিয়ে তদন্তকারীদের সঙ্গেও দীর্ঘ বৈঠক করেন নাগেশ্বর।