পঞ্চায়েত ভোটে লড়তে গিয়ে যাঁদের ঘরবাড়ি ভেঙেছে বা গুরুতর আঘাত লেগেছে, তাঁরা বিচার চাইলেন তথ্যানুসন্ধান কমিটির কাছে। পঞ্চায়েত নির্বাচনে হিংসার অভিযোগ নিয়ে গণশুনানির জন্য ‘সেভ ডেমোক্র্যাসি’র আহ্বানে সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি গোপাল গৌড়ার নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের কমিটি রবিবার গিয়েছিল দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনায়। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুর ও ডায়মন্ড হারবার মহকুমার বেশ কিছু বাসিন্দা কমিটির কাছে এসে অভিযোগ করেছেন, কী ভাবে বিডিও এবং এসডিও-র দফতরকে দুষ্কৃতী বাহনী দিয়ে ঘিরে ফেলে মনোনয়ন বাধা দিতে বিরোধী দলের প্রার্থীদের বাধা দেওয়া হয়েছিল। ডায়মন্ড হারবারে পঞ্চায়েতের ৯৬% পঞ্চায়েত আসনই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে তৃণমূল। বৃন্দাখালি গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা আয়ুব আলি লস্কর অভিযোগ করেন, তাঁর ভাইপো নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় তাঁদের উপরে হামলা হয়েছিল। তাঁর বাঁ পায়ে গুলি লেগেছিল, যার জন্য তিনি স্বাভাবিক ভাবে চলাফেরা করতে পারেন না। একটা নির্বাচন তাঁকে বাকি জীবনের জন্য পঙ্গু করে দিয়েছে। পুলিশে অভিযোগ করে লাভ হয়নি, উল্টে শাসক দল মামলা তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে বলে অভিযোগ। লস্কর প্রাক্তন বিচারপতি গৌড়ার কাছে আর্জি জানিয়েছেন, তাঁদের ন্যায়বিচার পাওয়ার জন্য কোনও ব্যবস্থা হোক। কমিটির আজ, সোমবার যাওয়ার কথা হুগলি জেলায়।