আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ তুলে এ বার পোস্টার মারা হল বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে। ভোটের খরচ বাবদ দল যে টাকা দিয়েছিল, তা খরচ না করে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন বেশ কয়েক জন বিজেপি নেতা— এই রকম অভিযোগ তুলে পোস্টার পড়ল বসিরহাটে। অভিযোগ নস্যাৎ করে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুর দাবি, কাটমানি বিক্ষোভের হাত থেকে বাঁচতে তৃণমূল এই সব করছে। পোস্টার-কাণ্ডে পুলিশে অভিযোগও করবে বিজেপি, জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন।

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) সুব্রত চট্টোপাধ্যায়, এ বারের লোকসভা নির্বাচনে বসিরহাটের বিজেপি প্রার্থী সায়ন্তন বসু এবং বিজেপির বসিরহাট সাংগঠনিক জেলা কমিটির সভাপতি গণেশ ঘোষের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ তুলে পোস্টার মারা হয়েছে বসিরহাট শহরের বেশ কিছু এলাকায়। বসিরহাট আসনেই এ বারের লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন সায়ন্তন। ভোটের প্রচার এবং অন্যান্য খরচ বাবদ সায়ন্তনকে দল ২ কোটি টাকা দিয়েছিল এবং সে টাকা খরচ না করে তিনি সুব্রত চট্টোপাধ্যায়, গণেশ ঘোষ এবং আর এক স্থানীয় নেতা দুলাল সরকারের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন— পোস্টারে এমনই লেখা হয়েছে।

এই পোস্টার কারা মারলেন, তা স্পষ্ট নয়। তবে সায়ন্তনের মতো রাজ্য বিজেপির অন্যতম শীর্ষনেতার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের দিকে সকলের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা শুরু করেছেন স্থানীয় তৃণমূল কর্মীরা। বিজেপির যে গোষ্ঠী সায়ন্তনদের বিপক্ষে, সেই গোষ্ঠীই ‘সত্যটা প্রকাশ্যে এনেছে’ বলে তৃণমূলের স্থানীয় নেতা-কর্মীদের দাবি।

আরও পড়ুন: দিনভর বাগ্‌যুদ্ধ, জমা পড়ল অনাস্থাও, ইস্তফা না দিয়ে পাল্টা চ্যালেঞ্জে সব্যসাচী​

আরও পড়ুন: স্তম্ভে ফাটল, যান চলাচল বন্ধ উল্টোডাঙা উড়ালপুলে, ব্যাপক যানজট​

রাজ্য বিজেপি অবশ্য এই অভিযোগকে কোনও গুরুত্বই দিচ্ছে না। সায়ন্তন বসু বলেন, ‘‘ওই পোস্টার সম্পর্কে সাফাই দেওয়ার প্রয়োজন বোধ করছি না। তৃণমূলের গায়ে কাটমানির কালি লেগে গিয়েছে তো, তাই তৃণমূল এখন বিজেপি-কে বদনাম করতে চাইছে। সেই লক্ষ্যেই বসিরহাটে এ সব করেছে।’’ তৃণমূলের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করতে চলেছে বিজেপি, জানিয়েছেন সায়ন্তন।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।