বিজেপির ‘হাঙ্গামা’ সৃষ্টির বিরুদ্ধে দাঁড়িয়ে জেলে যেতেও প্রস্তুত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর বক্তব্য, ‘‘দাঙ্গাবাজদের ভালবাসি না। তাতে যদি আমাকে জেলে যেতে হয়, কী যায় আসে! বাংলাকে গুজরাত বানাতে দেব না।’’  

ভোটের প্রচার চলাকালীন কলকাতায় বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের মিছিল থেকেই বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়েছিল বলে আগেই অভিযোগ জানিয়েছিলেন মমতা। মঙ্গলবার হেয়ার স্কুলের মাঠে বিদ্যাসাগরের মূর্তি পুনঃস্থাপনের অনুষ্ঠানে মমতা শাহকে দুষে বলেন, ‘‘এখন যিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, তাঁরই মিছিল ছিল সে দিন। কেন সে দিন বিশৃঙ্খলা করলেন? কেন বিদ্যাসাগরের মূর্তি ছুড়ে ফেলে দিয়েছিলেন? সব তথ্যপ্রমাণ আছে আমাদের কাছে। আপনারাই করেছেন সব।’’ গেরুয়া ফেট্টিবাঁধা ‘দুষ্কৃতী’রা এই ঘটনার নেপথ্যে ছিলেন বলে অভিযোগ করে মমতা বলেন, ‘‘সবার দ্বারা গেরুয়া হয় না। যারা গেরুয়াকে সম্মান দিতে পারে তারাই তা পরার যোগ্য।’’ 

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের অবশ্য দাবি, ‘‘মূর্তি কারা ভেঙেছে, তা কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা তদন্ত করলেই প্রমাণ হবে। এ কথা আমরা আগাগোড়াই বলে আসছি।’’ এ বার লোকসভা ভোটে রাজ্যে ১৮টি আসন পেয়েছে বিজেপি। এই ‘শক্তি’ পাওয়ার আগে থেকেই বিজেপি রাজ্যে গোলমালের চেষ্টা চালাচ্ছে বলে মমতার অভিযোগ। তাঁর মন্তব্য, ‘‘আমরা ক্ষমতায় এসে কিন্তু কার্ল মার্ক্স, লেনিনের মূর্তি ভাঙিনি।’’ 

বিজেপি বাংলায় একের পর এক গোলমাল বাধিয়ে অচলাবস্থা তৈরির চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করে মমতা বলেন, ‘‘বিজেপি সব ক’টি সংস্থাকে কিনে নিয়েছে। বিচারালয় নিয়েও আমি কিছু বলছি না। যে যে জায়গায় বিচার পাওয়া দরকার, সবই যদি বন্ধ হয়ে যায়, মানুষ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে?’’

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের YouTube Channel - এ।