দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াকের উপরের রাস্তায় পাতা টালির একাংশে ফাটল দেখা দিল। বুধবার সকালে এই ঘটনা ঘটে। রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশে এ দিন বিকেল থেকেই তড়িঘড়ি টালি বদলানোর কাজ শুরু হয়েছে।

গত বছর নভেম্বরে উদ্বোধন হয়েছিল দক্ষিণেশ্বর স্কাইওয়াকের। ওই স্কাইওয়াকের উপরে বসানো হয়েছিল বেশ কিছু স্টল। সেই দোকানদারেরাই জানাচ্ছেন, এ দিন সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ ৩৯ ও ৪০ নম্বর স্টলের সামনে জোরে কিছু ফাটার মতো শব্দ হয়। দেখা যায়, ওই দোকান দু’টির সামনের রাস্তায় থাকা চারটি টালির মধ্যে দু’টি ফুলে উঠেছে। এর পরেই তড়িঘড়ি ওই অংশটি রেলিং দিয়ে ঘিরে দেন নিরাপত্তারক্ষীরা। তবে দর্শনার্থীদের যাতায়াত বন্ধ করা হয়নি।

ফাটলের কারণ কী? ইঞ্জিনিয়ারেরা জানাচ্ছেন, ওই স্ল্যাবের নিচে রয়েছে কংক্রিটের ঢালাই। তার নিচে রয়েছে লোহার পাত ও লোহার বিম। প্রবল গরমে লোহার পাতের সম্প্রসারণ হওয়ার কারণে স্ল্যাবের নিচে গরম হাওয়া তৈরি হয়েছিল। ফলে সেই হাওয়া বাইরে বেরোনোর চেষ্টা করতেই টালি দু’টি ফুলে উঠে গিয়েছিল।

এ দিনের ঘটনার খবর পেয়ে পুরমন্ত্রী কামারহাটি পুরসভার চেয়ারম্যান গোপাল সাহা এবং কেএমডিএ-র আধিকারিক ও নির্মাণকারী সংস্থার সঙ্গে কথা বলেন। এর পরেই যে বেসরকারি সংস্থা স্কাইওয়াক তৈরি করেছেন, তার ইঞ্জিনিয়ারেরা এবং কেএমডিএ-র আধিকারিকরা এসে ওই জায়গাটি সরেজমিনে ঘুরে দেখেন। চারটি টালি তুলে ফেলে তার নিচের অংশ পরীক্ষা করে দেখা হয়। তার পরে চারটি টালিই বদলে ফেলার কাজ শুরু করা হয়। 

এ দিন ফিরহাদ বলেন, ‘‘দু’টো স্ল্যাব গরমের কারণে সামান্য উঠে গিয়েছিল। পুরো খতিয়ে দেখে টালি বদলানোর নির্দেশ দিয়েছি।’’ দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের অছি ও সম্পাদক কুশল চৌধুরী বলেন, ‘‘অতি সামান্য ঘটনা। দর্শনার্থীরা ওই অংশের পাশ দিয়েই হাঁটাচলা করেছেন। কোনও সমস্যা হয়নি।’’