কলকাতা বিমানবন্দরে স্পাইসজেটের টেকনিশিয়ান রোহিত বীরেন্দ্র পাণ্ডের (২২) মৃত্যুর ঘটনায় শুক্রবার তদন্ত শুরু করেছে ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ)। মৃতের পরিবারকে বিশাল অঙ্কের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা এ দিনই ঘোষণা করেছে স্পাইসজেট। মুম্বইয়ে রোহিতের মা পদ্মাবতী বীরেন্দ্র পাণ্ডের কাছে ক্ষতিপূরণের চিঠি পৌঁছেছে বলে উড়ান সংস্থা সূত্রের খবর। 

দুর্ঘটনায় মৃত্যুর জন্য সংস্থার গ্রুপ বিমা প্রকল্পে রোহিতের পরিবারকে ৩০ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। এ ছাড়া পরিবারের দাবি মেনে প্রতি মাসে দেওয়া হবে ২৫ হাজার টাকা। উড়ান সংস্থা জানিয়েছে, আগামী ৪৬ বছরের হিসেবে সেই টাকার পরিমাণ হয় এক কোটি ৩৮ লক্ষ। রোহিতের দুই বোন নিধি ও শ্বেতার পড়াশোনার খরচও বহন করবে স্পাইসজেট। 

মঙ্গলবার রাতে বিমানবন্দরে বিমান সারানোর সময় আচমকা চাকা-ঘরের দরজা বন্ধ হয়ে মারা যান রোহিত। ডিজিসিএ সূত্রে জানা গিয়েছে, তারা রুটিনমাফিক তদন্তে নেমেছে। বিমানবন্দর সূত্রের খবর, ঠিক কী কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটল, কারও গাফিলতিতে দুর্ঘটনা ঘটেছে কি না, ভবিষ্যতে এই ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে কী করা প্রয়োজন— সবই খতিয়ে দেখা হবে ডিজিসিএ-র তদন্তে।