• প্রদীপ্তকান্তি ঘোষ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘অমরুত’ ধারায় বঙ্গের প্রশংসা

Projects
প্রতীকী ছবি।

কোথাও বার বার দরাজ প্রশংসা। কোথাও খানিক ‘সন্দেহ’। আবার কোথাও বরাদ্দ অর্থ খরচ করতে না পারায় জিজ্ঞাসা। তিন প্রকল্পে তিন দৃষ্টিভঙ্গী নিয়ে রাজ্যের কাজ (পারফরম্যান্স) বিচার করছে কেন্দ্র।

প্রকল্পের নাম ‘অমরুত’। ফের একবার এই প্রকল্পের রাজ্যের ভূমিকার প্রশংসা করল কেন্দ্র। সাম্প্রতিক অতীতে এই নিয়ে তৃতীয়বার। করোনা কালে একশো দিনের কাজে কী ভাবে রাজ্য এত 'ভাল' কাজ করল, তা দেখতে প্রতিনিধি দল পাঠাচ্ছে কেন্দ্র। আবার জলশক্তি মন্ত্রকের অধীন জল জীবন মিশন প্রকল্পের বরাদ্দ খরচ করতে না পারায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হচ্ছে।

অটল মিশন ফর রেজুভিনেশন অ্যান্ড আরবান ট্রান্সফরমেশন (অমরুত বা এএমআরইউটি) প্রকল্পের অন্তর্গত বঙ্গের উদ্যান কিংবা জলের কাজ - তা নিয়ে টুইট করেছিলেন কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের সচিব দুর্গাশঙ্কর মিশ্র। এ বার আর সচিব নন। সরাসরি মন্ত্রকের টুইটার হ্যান্ডেলে জায়গা করে নিয়েছে বঙ্গের জল আর উদ্যানের কাজ।

বুধবার কেন্দ্রীয় আবাসন ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের টুইটারে উঠে এসেছে হুগলির উত্তরপাড়া-কোতরং পুর এলাকার প্রায় ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে হওয়া অমরুতের অধীন জল প্ৰকল্প। এর ফলে ৪০,৬১০ টি পরিবারের পরিস্রুত জলের সুবিধা পাবেন বলে দাবি করেছে কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রক। চলতি বছরে মার্চেই পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরের তত্ত্বাবধানে এই কাজ শেষ হয়েছে। পাশাপাশি, সবুজ গালিচা আর কার্টুন চরিত্রে সজ্জিত দক্ষিণ ২৪ পরগনার রাজপুর-সোনারপুর পুরসভার অধীন মিশন পল্লীর বিবেকানন্দ শিশু বিতানের একাধিক ছবি তুলে ধরেছে কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রক। নীল-সাদা রঙে রাঙানো বাঁশবেড়িয়ার সবুজ উদ্যানও প্রশংসা কুড়িয়েছে তাদের। সাম্প্রতিক অতীতে অমরুতের অধীনে বাঁকুড়ার জল প্রকল্প কিংবা কলকাতা পুরসভার পাটুলি-বৈষ্ণবঘাটা বা পানিহাটির উদ্যানকে দেশের সমানে তুলে ধরেছিলেন কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের সচিব।

কোনও কোনও রাজ্যের কাজের অগ্রগতির প্রসঙ্গ তুলে ধরে আদতে অন্য রাজ্যকে বার্তা দিতে চায় কেন্দ্র। বোঝাতে চায়, বাকিরা এভাবেই কাজ করুক। যা সুস্থ প্রতিযোগিতার অঙ্গ বলে মত অনেক প্রশাসনিক কর্তার। এক কর্তার মতে, "কাজের প্রশংসা ভাল কাজ করতে সংশ্লিষ্ট রাজ্যকে আরও উৎসাহ দেয়। অন্য রাজ্যকেও বোঝানো যায়, কী ভাবে কাজ করা উচিত।" অমরুতের কাজের প্রতিটি ধাপের রিপোর্ট আর ছবি নিয়মিত দিল্লিতে পাঠাতে হয় সব রাজ্যকেই। আর সেখান থেকে বাছাই করা পুরসভা বা রাজ্যের কথা সামনে আনে কেন্দ্রীয় নগরোন্নয়ন মন্ত্রক।

অমরুত প্রকল্পটির সঙ্গে নগরায়নের সম্পর্ক আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে। বর্তমান সময়ে নগরায়ন ক্রমে ডালপালা আর শিকড় ছড়িয়ে চলেছে। কেন্দ্রের কাছে তাই প্রকল্পটির বাড়তি গুরুত্ব রয়েছে। সে কারণে এভাবে নিয়ম করে টুইটার হ্যান্ডেলের মাধ্যমে তা প্রকাশ্যে নিয়ে আসা বলে মত কোনও কোনও প্রশাসনিক আধিকারিকের। যখন রাজ্যের কোনও কোনও দফতরের কাজ নিয়ে প্রশ্ন তুলছে কেন্দ্র, তখন নগরোন্নয়ন দফতরের তত্ত্বাবধানে থাকা বঙ্গের অমরুত কী করে নিয়মিত কেন্দ্রের প্রশংসা পাচ্ছে। তা নিয়ে অবশ্য কিছু বলতে নারাজ দফতরের কর্তারা।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন