• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রার্থী বাছাইয়ে শুভেন্দু না টিম পিকে, ধন্দ তৃণমূলে  

Prashant Kishor  and Suvendu Adhikari
প্রশান্ত কিশোর ও শুভেন্দু অধিকারী।

নজরে পুরভোট। সাংগঠনিক ভাবে দলের কর্মী সমর্থকদের নিয়ে বৈঠক-সহ প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে শাসকদল তৃণমূল। পূর্ব মেদিনীপুরের তিন পুরসভা, তমলুক, কাঁথি ও এগরায় এ বার ভোট।

পুরভোটের আগে তৃণমূলের নতুন কর্মসূচি ‘বাংলার গর্ব মমতা’ পালন শুরু হয়েছে রাজ্য জুড়ে। শনিবার থেকে জেলায় বিধানসভাভিত্তিক এই কর্মসূচি পালন শুরু করেছেন জেলার অধিকাংশ বিধায়ক। কলকাতায় এই কর্মসূচি ঘোষণার দিন পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এবং কাঁথি ও তমলুকের সাংসদ শিশির ও দিব্যেন্দু অধিকারীর গরহাজিরা যেমন প্রশ্ন উঠেছিল, শনিবার জেলাতেও সেই কর্মসূচি পালনে দেখা যায়নি শুভেন্দুকে। নন্দীগ্রামের বিধায়ক শুভেন্দু এই কর্মসূচি পালন করবেন কিনা তা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে কৌতূহল রয়েছে। তৃণমূল সূত্রে খবর, ‘বাংলার গর্ব মমতা’ কর্মসূচি পালনে পিকে’র (প্রশান্ত কিশোর) টিমের নির্দেশিকা অনুযায়ী দলীয় নেতাদের দায়িত্ব দেওয়া ও আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। জেলায় দলের অধিকাংশ বিধায়ক এবং ব্লক সভাপতি সেই নির্দেশ মেনে কর্মসূচি পালন করলেও শুভেন্দু অধিকারীর এই কর্মসূচিতে যোগ না দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আর এই পরিস্থিতিতে জেলার তিন পুরসভার ভোটে কারা প্রার্থী বাছাই করবেন তা নিয়ে দলের অন্দরে চর্চা শুরু হয়েছে।

দলীয় কর্মীদের একাংশের মতে, অধিকারীদের খাসতালুক হিসেবে পরিচিত এই জেলায় পুরভোটে প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে শুভেন্দু ও শিশির অধিকারীরাই এতদিন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতেন। তবে এ বার প্রার্থী বাছাইয়ে পিকে’র টিমের ভূমিকা থাকবে। তমলুক, কাঁথি ও এগরা—তিন পুরসভাতেই নিরঙ্কুশ ক্ষমতায় তৃণমূল। গত লোকসভা ভোটে এগরা ও তমলুকে ধাক্কা খেয়েছে দল। এই পরিস্থিতিতে পুরভোটের প্রস্তুতির পাশাপাশি দলের কর্মী ও এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সম্ভাব্য তালিকা তৈরি করছে পিকে’র টিম। সেই তালিকা খতিয়ে দেখে পুরভোটের প্রার্থীর চূড়ান্ত তালিকা তৈরি হবে। ফলে জেলায় পুরভোটে প্রার্থী বাছাই নিয়ে রাশ কার হাতে থাকবে তা নিয়ে দলের বিদায়ী কাউন্সিলর ও প্রার্থীপদের আশায় থাকা অন্য নেতারা সংশয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ। তমলুক পুরসভার এক বিদায়ী তৃণমূল কাউন্সিলরের কথায়, ‘‘পুরভোটে প্রার্থী বাছাই নিয়ে শুভেন্দুবাবু ও শিশিরবাবু প্রধান ভূমিকা নিয়ে থাকেন। কিন্তু এবার পিকে’র টিমও এলাকায় ঘুরে মতামত সংগ্রহ করছে জানতে পেরেছি। তাই প্রার্থী নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত কী ভাবে হবে তা জানতে না পারায় আমার মতো অনেকেই সংশয়ে রয়েছে,। যে কারণে প্রচারেও নামতে পারছি না।’’

তবে প্রার্থী বাছাই নিয়ে শুভেন্দুই যে প্রধান ভূমিকায় থাকবেন তা জানিয়েছেন কাঁথি শহর তৃণমূল সভাপতি সিদ্ধার্থ মাইতি। তিনি বলেন, ‘‘আমরা ওয়ার্ড ভিত্তিক কর্মসূচি পালন করছি। পুরসভা ভোটে প্রার্থী বাছাই নিয়ে শুভেন্দুবাবু আমাদের সঙ্গে শীঘ্রই আলোচনায় বসবেন। এখানে পিকে’র টিমের সদস্যরাও খোঁজ নিচ্ছেন শুনেছি। তাঁরা আমাদের কাছে আসেননি বা যোগাযোগও করেননি। এখানে প্রার্থী নিয়ে শুভেন্দুবাবুই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন।’’

এগরা শহর তৃণমূল সভাপতি জয়ন্ত সাহু বলেন, ‘‘পুরভোটের প্রস্তুতি নিতে কিছুদিন আগে দলের কাউন্সিলর ও শহরের নেতৃত্বকে নিয়ে জেলা সভাপতি শিশির অধিকারী বৈঠক করেছেন। পিকে’র টিমের সঙ্গেও আমাদের আলোচনা চলছে। তাঁরা মতামত দিচ্ছেন। স্বচ্ছ ভাবমূর্তি ও এলাকার মানুষের জন্য সময় দিতে পারবেন এমন প্রার্থীই নির্বাচন করা হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন